চিনকে একঘরে করতে পরিকল্পনা আমেরিকার, চাপে চিন

বার বার আমেরিকা চিনকেই দোষ দিয়ে এসেছে করোনা মহামারীর জন্য। তাদের জন্যই সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে এই কোভিড-১৯। আর এই নিয়েই বেশ কিছু দিন ধরে আমেরিকা ও চিনের মধ্যে এক মানসিক দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে। তারই জেরে আমেরিকা চিনকে এক ঘরে করতে তৎপর হয়ে উঠেছে।

করোনার কারনে আমেরিকাতে খুবই খারাপ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আক্রন্তের সংখ্যা ১০ লাখ হতে যায়। মৃতের সংখ্যা ৫৫ হাজার পার করেছে। পৃথিবীর সব থেকে ক্ষতিগ্রস্থ্য দেশ এখন আমেরিকা। প্রতি দিন ২০ থেকে ৩০ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে। এমত অবস্থ্যায় লক্ষ লক্ষ মানুষ চাকরি হারিয়েছে। সেই দেশে থাকা বহু ভারতীয় বেকার হয়ে পড়ছে রাতারাতি। এর ফলে দেখা দিয়েছে এক বিরাট আর্থিক মন্দা। আর এই সবের কারণ হিসাবে চিনকেই দায়ী করছে মার্কিন মুলুক।

আরও পড়ুনঃ চিনের সাথে ব্যবসায় নারাজ গোটা দুনিয়া’ এই পরিস্থিতি আশীর্বাদ স্বরূপ ভারতের কাছে

তাই বিভিন্ন পথে চিনকে সায়েস্তা করার জন্য বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ইতি মধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে এই সবের জন্য চিনকে শাস্তি পেতে হবে। তাদের বক্তব্য, চিন সব কিছু জানার পর সব তথ্য গোপন করেছে বিশ্ববাসীর কাছ থেকে। বিপদের মুখে ঠেলে দিয়েছে গোটা মানুবজাতিকে। ২০১৯ এর শেষ মাসে চিনে করোনা ভাইরাসের ঘটনা প্রকাশ্যে আশে। কিন্তু চিন সেই ব্যপারে কোনো মুখ খোলেনি। আর এটাই চিনের সবথেকে বড় ভুল বলে জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

সূত্রের খবর, আমেরিকা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাথে কথা বলছে, আলোচনা করছে যে কিভাবে চিনকে জব্দ করা যায়। এই হালে মার্কিন বিদেশ সচিব পম্প জানিয়েছেন, আমরা বিভিন্ন দেশের সাথে কথা বার্তা চালাচ্ছি। যেভাবেই হোক চিনকে উপযুক্ত শিক্ষা দিতেই দিতে হবে।

আরও পড়ুনঃ দেখা দিল করোনার নতুন উপসর্গ, ডাক্তারদের নজর এখন পায়ের দিকে

Leave a Reply