দু’দিনের লাদাখ ও কাশ্মীর সফরে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং

defense Minister Rajnath singh

নয়াদিল্লিঃ লাদাখ ও কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রন রেখা ও সীমান্তের নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে দু’দিনের সফর শুরু করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এদিন লাদাখে পৌছে গিয়েছেন তিনি, লাদাখের নিয়ন্ত্রণ রেখার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখবেন তিনি। এই সফরে তাঁর সঙ্গে রয়েছে, চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত এবং সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারভানে।

লাদাখে নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারত ও চিনের মধ্যে উত্তেজনা শুরু হওয়ার পর দিল্লিতে সেনা কর্তাদের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক করে পরিস্থিতি সম্পর্কে বিশদে আলোচনা করেছেন রাজনাথ সিং।

আরও পড়ুনঃ নিজেকে ঈশ্বরের কাছে সমর্পণ করেছেন, বললেন বিগ বি

এবার তিনি সরাসরি লাদাখে গিয়ে নিয়ন্ত্রণরেখার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখবেন তিনি। জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহেই লাদাখে যাওয়ার কথা ছিল প্রতিরক্ষামন্ত্রীর। কিন্তু আচমকাই তাঁর বদলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেখানে পৌছে যায়।

আরও পড়ুনঃ ১ আগস্ট থেকে ট্যাক্সিতে উঠলেই ভাড়া ৫০ টাকা

পাকিস্তানের উড়েছে ঘুম, গিলগিট ও বালতিস্তানের অফিসিয়াল ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট খুললো ভারত

Gilgit-Baltistan Official Twitter Account

ভারত আর পাকিস্তানের সম্পর্ক ১৯৪৭ এর পর থেকেই যে একবারে ভালো নয় তা বলাই বাহুল্ল। সময়ে সময়ে বার বার ভারতের উপর পাকিস্তান আক্রমন করে এসেছে। বাংলাদেশ ভাগের সময়েও যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছিল ভারত ও পাকিস্তান।

এই বার একধাপ এগিয়ে লাদাখ, গিলগিট ও বালতিস্তানের অফিসিয়াল ট্যুইটার একাউন্ট খুলে ফেললো ভারত সরকার। ফলে সেই খবর রাতারাতি মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে। এতি মধ্যেই বিভিন্ন খবরের মাধ্যমে সেই তথ্য পৌছে যাচ্ছে ভারতের প্রতিটি মানুষের কাছে।

আরও পড়ুনঃ কী এই আত্মনির্ভর ভারত অভিযান?

এই ট্যুইটার একাউন্টের নাম দেওয়া হয়েছে Giltit-Baltistan, Ladakh(U.T.), India । ব্যনারে দেওয়া হয়েছে উজ্জল ভারতের পতাকার ছবি। এতি মধ্যেই সেই একাউন্টে ৩১ হাজার ফলোয়ার ছাড়িয়ে গিয়েছে।

একাউন্ট আরম্ভ করা মাত্রই সেইখানে লাদাখের আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য প্রদান করা হয়েছে। মূলত কেন্দ্র শাসিত ভারতীয় জনতা পার্ট শাসনকালের প্রথম থেকেই সচেষ্ট ছিল। আন্তর্জাতিক সম্পর্কগুলিকে সঠিকভাবে পরিচালিত করার চেষ্টা কেন্দ্রীয় সরকার প্রথম থেকেই করে আসছে। একটু একটু করে পাকিস্তানকে কোণঠাসা করে চলেছে ভারত। তাই এক বড় পদক্ষেপ নিয়েই শুরু হয়েছে এই ট্যুইটার একাউন্ট।

ফলে এখন পাকিস্তানের রাতের ঘুম উড়িয়ে দিয়েছে ভারত। এখন দেখার পালা এর পরিপেক্ষিতে পাকিস্তানের কি প্রতিক্রিয়া আশে, কি করে ইমরান খান।

আরও পড়ুনঃ আগস্টেই ভারতের বাজারে আসতে পারে করোনার ওষুধ