PUBG সহ ১১৮টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করা হল, ঘোষণা কেন্দ্রের

new mode is coming.

নয়াদিল্লিঃ PUBG সহ ১১৮টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করলো কেন্দ্রীয় সরকার। এএনআই সংবাদসংস্থা খবর অনুযায়ী, দেশের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তার পক্ষে বিপজ্জনক হওয়ায় এই অ্যাপগুলিকে নিষিদ্ধ করা হয়।

আরও পড়ুনঃ মেদহীন পেট পেতে চাইলে সকাল ৮টার আগে খেতে হবে এই জিনিসটা

লাদাখে চিনের সঙ্গে নতুন উত্তেজনা বাড়ার পরই ভারতের এই পদক্ষেপ। ভারতে এই মুহূর্তে ৩ কোটি ৩০ লক্ষ PUBG ব্যবহারকারী রয়েছেন। কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফে এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।

যে অ্যাপগুলি নিষিদ্ধ করা হয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হল PUBG। এছাড়াও APUS, BAIDU, faceU, CamCard,VooV Meeting, Life Saver, Game of Sultans, App lock, Gallery HD-এর মতো অ্যাপগুলিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ মৃত্যু হওয়ার ২ দিন পরেও ভেন্টিলেটরে করোনা আক্রান্তের দেহ!

এবার Instagram ব্যবহারকারীদের জন্য আসছে TikTok-এর মতো ফিচার!

Instagram Reels Feature

ফটো আর ভিডিও শেয়ার করার এক জনপ্রিয় অ্যাপ ইনস্টাগ্রাম (Instagram)। গত বছর কোম্পানির তরফ থেকে একটি নতুন ফিরাচ রিলস (Reels) এর কথা বলা হয়ে ছিল। গত বছরের নভেম্বর মাসে লঞ্চ করা হয়েছিল এর নতুন ফিচারটি। তার পর থেকে এর টেস্টিং ফ্রান্স আর জার্মানিতে চলছে। তবে নতুন এক রিপোর্ট অনুযায়ী, কিছু সময়ের মধ্যেই এই নতুন ফিচারটি ভারতীয়দের জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

তবে এতি মধ্যেই কিছু ভারতীয় এই ফিচারটি ব্যবহার করছে টেস্টার হিসেবে। বর্তমানে কোম্পানি যে দেশগুলিতে এই ফিচারটি রোলআউট করেছে সেই তালিকাতে ভারতের নাম নেই। দেখার বিষয় কবে ভারতীয়রা এই ফিচারটি ব্যবহার করতে পারে।

আরও পড়ুনঃ বদল হল শিয়ালদহ স্টেশনের নম্বর, জেনে নিন কি কি পরিবর্তন হল

এই Reels ফিচারটি কী?

এই রিলস ফিচারটির সাহায্যে ব্যবহারকারীরা ভিডিও বানাতে পরবে তবে টিকটকের মতো করে। যেভাবে টিকটকে ১৫ সেকেন্ডের ভিডিও রেকর্ড করা যায় ঠিক সেই ভাবে এখানেও করা যাবে। সেই ভিডিও এডিটও করতে পারবে ব্যবহারকারীরা। অডিও বা মিউজিক এডিটও করা যাবে এবং সেই এডিট করা ভিডিওটি ইনস্টাগ্রাম স্টোরিজ আর ডিরেক্ট মেসেজেও বন্ধুদের সাথে শেয়ার করা যাবে।

বর্তমানে ভারতে টিকটক সহ ৫৮ টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ। ফলে এই সময় ইনস্টাগ্রামের এই ফিলস ফিচারটি খুবই গুরুত্বপূর্ন হয়ে উঠতে পারে ভারতের বাজারে।

আরও পড়ুনঃ এক নজরে দেখে নিন কোন রাজ্যে রয়েছে সব থেকে বেশি সুস্থতার হার

চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালো আমেরিকা, উঠল একই দাবি

support America to ban Chinese apps

লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনার আবহতে টিক টক সহ ৫৯টি অ্যাপ সোমবারই নিষিদ্ধ করলো ভারত সরকার। আর এর পর থেকেই গুগল প্লে স্টোর বা অ্যাপেল অ্যাপ স্টোর কোথাওই এই চিনা অ্যাপ গুলির দেখা মিলছেনা। চিনের এইরকম বাড়াবাড়ি রুখতে ভারতের এই সিদ্ধান্তকে আমেরিকা স্বাগত জানালো।

বুধবার এই বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও, তিনি একটি বিবৃতিতে বলেন যে, “চিনা কমিউনিস্ট পার্টির নজরদারি রুখতে এটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হিসাবে কাজ করতে পারে”। তিনি আরও বলেন, “অ্যাপের ক্ষেত্রে নেওয়া এই সিদ্ধান্ত ভারতের সার্বভৌমত্বকে আরও শক্তিশালী করে তুলবে এবং অখণ্ডতা ও জাতীয় সুরক্ষাকে নিশ্চিত করবে।

আরও পড়ুনঃ প্রাতঃ ভ্রমনে আক্রান্ত রাজ্য বিজেপি প্রধান দিলীপ ঘোষ, ভাঙা হল একাধিক গাড়ি

মার্কিন কংগ্রেসের অনেক সদস্যই টিক টক নিষিদ্ধ করার কথা বলেছেন। তাদের দাবি, টিক টকের মত শর্ট ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ দেশের নিরাপত্তার পক্ষে বিপজ্জনক। রিপাবলিকান সেনেটর জন করনিন বলেছেন, লাদাখে সংঘর্ষের পরে ভারত টিক টক সহ বেশ কিছু অ্যাপ নিসিদ্ধ করেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেরও এই একই ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

মার্কিন সরকারের আধিকারিকরা তাদের ফোনে যেন টিক টক না রাখেন। সেই নির্দেশ দেওয়া সংক্রান্ত দু’টি বিল মার্কিন কংগ্রেসের বিবেচনাধীন ইতিমধ্যেই। চিনা অ্যাপ ভারত নিষিদ্ধ করার পর সেই বিল এবার পাশ করার দাবি জোরালো হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ বৈঠকে কাটল না জট, ১লা জুলাই চালু হচ্ছে না কলকাতা মেট্রো

ভারত ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেই থেমে নেই, এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে চিনের ওয়েবো অ্যাপ থেকে অ্যাকাউন্ট সরিয়ে নিলেন। আর এইরকম একটি পদক্ষেপ থেকে তিনি বুঝিয়ে দিলেন যে সর্বোতভাবে চিনকে এবার প্রত্যাখ্যানের দিকেই ভারত এগোচ্ছে।

Zomato-এর কর্মীরা টি শার্ট পুড়িয়ে প্রতিবাদ জানালেন চিনের বিরুদ্ধে

burned T-shirt in protest against China

কোলকাতাঃ ব্যবসায় রয়েছে চিনের বিনিয়োগ। সেই জন্যে তা বর্জন করতে, Zomato-এর বেশ কিছু কর্মী প্রতিবাদ করলেন টি শার্ট পুড়িয়ে। চিনের করা হামলা ও ২০ জন সেনার মৃত্যুতে এভাবেই প্রতিবাদ জানালো বেহালা এলাকার কর্মী। অনেক কর্মী আবার দাবি করেছেন, প্রতিবাদের ফলে তারা চাকরিও ছেড়েছেন। আবার কর্মীরাই খাবার অর্ডার করতে নিষেধ করেছেন এই ফুড ডেলিভারি অ্যাপের মাধ্যমে।

চিন মুনাফা করে আমাদের থেকে, সেই টাকায় আমাদের সেনার উপর আবার হামলাও চালাচ্ছে। জমি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে আমাদের। এটা হতে পারেনা, এই বক্তব্য এক বিক্ষোভকারীর। তারা না খেয়ে থাকলেও এমন সংস্থায় তারা কাজ করবেনা যেখানে চিনার স্টেক রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ টিকটকে ভিডিও বানাতে গিয়ে তরুনি খেলেন কুকুরের কামড়, ভিডিও ভাইরাল

মে মাসেই প্রায় ৫২০ জন কর্মীকে Zomato ছাঁটাই করেছে। যেটা প্রায় তাদের সংস্থার ১৩ শতাংশের কাছাকাছি। করোনার জন্য কাজ হারিয়েছেন কর্মীরা। এই বিক্ষোভে তারা সামিল কিনা তা জানা যাইনি। এই নিয়ে সরাসরি কিছু জানানো হইনি Zomato-র তরফ থেকে।

আরও পড়ুনঃ সিবিএসই, আইসিএসই দশম-দ্বাদশ মুল্যায়ন কিভাবে করা হবে, তা জেনে নিন