গর্ভাবস্থায় অষ্টম মাসে এই খাবারগুলি থেকে দূরে থাকুন

গর্ভাবস্থায় প্রতিটি মহিলাই চান তাঁর গর্ভে থাকা সন্তানকে ভালো রাখতে, আর তাই হাজার রকম চেষ্টা করে থাকেন।

এই সময় নিজেকে ভালো রাখার সাথে সাথে সন্তানকে ভালো রাখার কথাও ভাবতে হয়। তাই নিজের শারীরিক অবস্থা ভালো রাখার সাথে সাথে সন্তানকে ভালো রাখার উপায় হল সঠিক খাদ্য গ্রহন।

গর্ভাবস্থায় প্রতিটি মহিলাকেই বিশেষভাবে মনোযোগ দিতে হবে খাবারের প্রতি। বিশেষ করে যদি অষ্টম মাসের গর্ভাবস্থা চলতে থাকে।

এই সময় কিছু খাদ্য আছে যেগুলি গ্রহণে উপকার হয়, আবার কিছু খাদ্য আছে যেগুলি গ্রহণে ক্ষতির সম্ভবনাও বৃদ্ধি পায়। তাই ডায়েটের দিকে বিশেষ নজর রাখতে হয়। একটি শিশুর স্বাস্থ্য বিশেষভাবে খাদ্য ও মাতার শারীরিক অবস্থার উপর নির্ভরশীল।

তাই দেখে নিন অষ্টম মাসের গর্ভাবস্থায় কী কী রকম খাবার এড়িয়ে চলবেন।

১। ধূমপান ও মদ্যপানঃ ধূমপান ও মদ্যপান স্বাভাবিক ও সুস্থ মানুষের জন্যও স্বাস্থ্যকর নয়। তবে কিভাবে এক জন গর্ভাবস্থায় থাকা মানুষের উপকারে চালার কোনো সুযোগই নেই। যদি এগুলির উপরে আসক্তি থাকে তবে এখনই ত্যাগ করে ফেলতে হবে।

২। ছাগলের দুধঃ ছাগলের দুধ এড়িয়ে চলুন। কারণ এতে থাকে টক্সোপ্লাজমোসিস। যা একজন গর্ভাবস্থায় থাকা মহিলার কাছে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে।

আরও পড়ুনঃ করোনা আবহে ডায়াবেটিস রোগীরা সুস্থ থাকবেন কী করলে দেখে নিন

৩। তেলেভাজাঃ এই সময় মহিলাদের টক, ঝাল, মিষ্টি খাবার বেশ পছন্দের হয়ে ওঠে। তাতে কোনো ক্ষতি নেই। তবে এই টক, ঝাল, মিষ্টি খাবারের তালিকাতে রয়েছে তেলেভাজা। যা বেশ পছন্দের খাদ্য। তবে এই খাদ্য খাওয়া একেবারেই বান্ধনিয় নয়। কারণ এই ধরনের খাদ্যে হজমের সমস্যা সৃষ্টি করে। যার কারনে গ্যাস্ট্রেইনটেস্টাইনাল সমস্যাও মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে। ফলে শিশুর স্বাস্থের উপড় সরাসরি প্রভাব বিস্তার করে।

৪। কফিঃ গর্ভাবস্থার অষ্টম মাসে এসে ক্যাফেইন যুক্ত পানীয় সম্পুর্ণভাবে এড়িয়ে চলুন। কারণ এই জাতীয় পানীয় শুধা ভাব কমিয়ে দেয়। কফি বেশি পরিমাণে সেবনে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যার আবির্ভাব ঘটাতে পারে।

৫। মাংসের যকৃতঃ গর্ভাবস্থায় থাকার সময় যকৃত খাওয়া থেকে বিরাম থাকুন। সাথে অর্ধেক রান্না হওয়া মাংস খাওয়া থেকে দূরে থাকুন। কারণ এই রকমের খাদ্য শিশুদের টসোপ্লাজমোসিস এবং লিস্টোরিওসিস-এর মতো সমস্যার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়।

তাই এই প্রকারের খাদ্য থেকে দূরে থাকুন, সুস্থ থাকুন, সুখে থাকুন।

আরও পড়ুনঃ মানসিক অবসাদ বা বাড়তি ওজোন, সবকিছু থেকে মুক্তি পেতে খান আমলকী

Leave a Comment