রাজ্যে করোনার তাণ্ডব! লাফিয়ে বাড়লো মৃতের সংখ্যা

রাজ্যে করোনা খুব একটা দয়া দেখাচ্ছেনা তা স্পষ্ট হয়ে গেল। প্রথম থেকেই গোটা দেশে লকডাউন ডেকে স্তব্ধ করা হয়েছিল মানুষের জীবনযাত্রা। কেন্দ্র থেকে লকডাউন আরম্ভ হওয়ার আগেই রাজ্যে লকডাউন ডাকা হয়েছিল। এই করোনাকে প্রতিরোধ করার এক মাত্র উপায় লকডাউন। সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকলেই করোনা এক ব্যাক্তি থেকে অন্য ব্যাক্তির দেহে যেতে পারবেনা। করোনা বিভিন্ন উপায়ে ছড়িয়ে পড়ে। তাই লকডাউকেই বেছে নেওয়া হয়েছিল।

কলকাতা তথা গোটা বাংলার মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে রাজ্য সরকার বিভিন্নভাবে প্রতিনিয়ত কাজ করে চলেছে। মানুষকে সতর্ক করার জন্য মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতার রাস্তায় মাইকিং পর্যন্ত করেছেন। অকারনে মানুষ যাতে বাড়ির বাইরে যেতে না পারে তার জন্য ড্রোনের সাহায্যেও চলেছে কড়া নিজরদারি।

আরও পড়ুনঃ দেশে হাজির আফ্রিকান সোয়াইন ফিভার! করোনার মধ্যেই নতুন বিপদ

কিন্তু সব কিছুই যেন আজ আর কাজ করছে না। সবকিছুকে উপেক্ষা করে করোনা একের পর এক মানুষকে আক্রান্ত করে চলেছে। দেখতে দেখতে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এক লাফে বেড়ে দাঁড়ালো ১,২৫৯। আর তার সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে মৃতের সংখ্যা, ১৩৩ জন। এর সাথে মানুষও সুস্থ্য হয়ে উঠছে। মোট ২১৮ জন মানুষ করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে।

এই সংখ্যা যে আরও ভালো রকমভাবে বাড়তে চলেছে সে ভালো মতো বোঝা যাচ্ছে। সবথেকে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে কলকাতার মধ্যেই। দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে মহারাষ্ট্রে। সেখানে মোট করোনা রোগী ১৪,৫৪১ জন, মারাগেছে ৫৮৩ জন।

আরও পড়ুনঃ জেনে নিন তৃতীয় লকডাউনে কি করতে পারবেন আর কি পারবেন না

Leave a Comment