ঘরের মধ্যে লুকিয়ে বিশাল গোখরো, দেখুন তারপর কি হল

King Cobra

#নৈনিতালঃ ঘরের মধ্যেই লুকিয়ে ছিল এক বিশাল আকারের গোখরো। তার তাই দেখে বাড়ির সব লোক বাড়ির বাইরে চলে গিয়েছিল। সেই খবর পৌঁছে যায় বনদফতরের কর্মীদের কাছে। সেই বনকর্মীদের মধ্যেই একজন সম্পুর্ন ঘটনার ভিডিও করে ট্যুইটারে শেয়ার করলেন। সেই অফিসারের নাম আকাশ কুমার বর্মা। সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই ভাইরাল হয় নেটবাসীদের মধ্যে।

এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরাখন্ডের নৈনিতালে। সেখানকার একটি বাড়িতে ঘটনাটি ঘটেছে। গোখরো সাপটি একটি টেবিলের তলাতে আশ্রয় নেয়। তারপরে আশে পাশে জানাজানি হতে মানুষের মধ্যে আতঙ্কের সঞ্চার ঘটে।

বনকর্মীরা সাপটিকে বাইরে আনতেই সাপটিকে দেখার জন্য মানুষের ভিড় জমতে শুরু করে।

আরও পড়ুনঃ আবার রাজ্যে দিন বদল করা হল লকডাউনের

পরে আরও একটি ভিডিও শেয়ার করেন আকাশ কুমার বর্মা। যেখানে সাপটিকে জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। এই সব কর্মের জন্য বহু মানুষের প্রশংসার পাত্র হয়ে ওঠে এই বনকর্মীর দল।

আরও পড়ুনঃ এবার জম্মু কাশ্মীরের পুলিশের ফাঁদে কুখ্যাত লস্কর জঙ্গি আকিব আহমেদ

জঙ্গলে মুখোমুখি হল বাঘ ও পাইথন, দেখুন তারপর কী ঘটলো

tiger and python in the forest

অনেক কিছু শেখার আছে। বহু ক্ষেত্রে পশুরা যে আচরণ করে, সেটা অনেক সময় মানুষের মধ্যে দেখা যায় না। তাই পাশবিক বিশেষণটা সর্বাত্মক ভাবেই ত্যাগ করা উচিত। একটি বাঘ ও একটি বিশাল পাইথন সাপের সংঘর্ষ মুখোমুখি। সেই ভিডিও ভাইরাল হল ট্যুইটারে। আসলে এই বাঘ ও পাইথনের ভিডিওতে লুকিয়ে আছে একটি বার্তা, যা অবশ্যই শিক্ষণীয়।

ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, জঙ্গলের মধ্যে রাস্তায় একটি বাঘ হঠাৎ একটি পাইথনের মুখোমুখি। যতবার বাঘটি এগোতে যাচ্ছে, আক্রমণের জন্য তৈরী হচ্ছে পাইথনটি। এইরকম চলতে থাকে খানিকক্ষণ।

আরও পড়ুনঃ অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম পর্যায়েই দুর্দান্ত সাফল্য

বেশ কিছুক্ষণ পরে বুঝতে পারে বাঘটি যে, পাইথন তাকে পথ ছেড়ে দেবেনা। বরং লড়াই করতে চাইছে পাইথনটি। এরপর বাঘের পদক্ষেপটি শেখার মতো। এরপর বাঘটি কোনো লড়াইয়ে গেলো না বরং পাইথনটিকে রাস্তা ছেড়ে দিল। এই ভিডিওটি পোস্ট করেন সুশান্ত নাড্ডা নামে এক ব্যক্তি।

এটি পোস্ট করে লিখেছেন ওই ব্যক্তি, ‘ওই বাঘটি পাইথনটিকে পথ ছেড়ে দিয়ে অভিজ্ঞতা ও বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দেয়। খারাপ বিষয় এড়িয়ে গিয়ে জীবনে এগিয়ে যাও।’

আরও পড়ুনঃ হাতের চামড়া কি শুষ্ক হয়ে যাচ্ছে! এগুলো মেনে চলুন

চিকিৎসকের পিপিই পোশাক পরেই ‘গরমি’ গানে অসাধারণ নাচ

Doctor's Dance in Garmi song

মুম্বইঃ গত তিন মাস ধরে চলছে লকডাউন। আনলক পর্বে কাজ শুরু হলেও সবার মনেই আতঙ্ক একটা আছেই করনার জেরে। কোনোও জনবহুলপুর্ণ এলাকায় গেলে মনের মধ্যে একটাই ভয় এখানে কেউ সংক্রামিত নয় তো। মানুষ এখন করোনার জন্য প্রায় আতঙ্কেই দিন কাটাচ্ছেন। আর এই কঠিন সময়ের মধ্যে যারা আমাদের পাশে প্রতি মুহুর্ত রয়েছে তাদের কথা উল্লেখ না করলেই নয়, তাঁরা হলেন ডাক্তার, নার্স, পুলিশকর্মী ও সাফাইকর্মী। যাঁরা নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাধারণ মানুষের জন্য সেবার কাজে নেমে পড়েছেন।

View this post on Instagram

We Won’t Let The Negativity Of The Situation Get To Us Even While Serving The Patients In This GARMI-ful But Oh So Graceful Outfit🤯💯 . HAPPY DOCTOR’s DAY To All My Colleagues & The FrontLine Workers Out There Putting Up A Brave Smile In The Face Of This Adversity & Doing Their Best To Help The Nation🙏🏻 . If We Can Stay Positive Through Risking Our Lives, Y’all Can Be A Lil Positive Too About This Extended Lockdown.! Stay Home Peepz🏡 . Always Loved The Vibe Of This Song But Now That It Clearly Matches The Feeling of Every Doctor Wearing The PPE KIT, (haaye garmi).! I Couldn’t Stop From Making A Video On It💃🏻💕 . @norafatehi @varundvn @badboyshah You Guys Were So Amazing In This😻 If Only I Could Match Up To Half Of What These Guys Do Everyday👉🏻 @dharmesh0011 @raghavjuyal @remodsouza @rahuldid @sushi1983 @suresh_kingsunited @shraddhakapoor @moonlight_chandni @iamkrutimahesh @punitjpathakofficial @perysheetal17 💙 . . PS: I Feel Like A TellyTubbie On A Mission.! . Also Thankyouuu @adityabhansali_ for editing this & @rajkeralia97 for helping me with this.!💛 . . #dance #dancer #choreography #love #norafatehi #doctorsday #instagood #instagram #bollywood

A post shared by Richa (@dr.richa.negi) on

আরও পড়ুনঃ এবার বাড়িতে বসেই বানিয়ে ফেলুন হেয়ার স্পা

সংক্রমণের ভয় থাকলেও রোগীদের সেবায় এক মুহুর্ত বিরত থাকছেন না চিকিৎসক ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা। করোনার বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে তাঁরা সবার সামনে রয়েছেন। কিন্তু দিনের পর দিন এইভাবে কাটানো যে কারোর পক্ষে কঠিন কাজ। কোনোরকম ছুটি নেই ওভারটাইম ডিউটি আর কতদিন করা যায়। মুম্বইয়ের এক চিকিৎসক ডাঃ রিচা নেগি, তাঁকে দেখা গেল কাজের ফাঁকে ‘স্ট্রিট ডান্সার ৩ডি’ ছবির ‘গরমি’ গানে নাচতে। আর সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। পিপিই পোশাক পড়ে তাঁকে নাচতে দেখে সবাই মুগ্ধ।

আরও পড়ুনঃ ত্বকের কালচে ভাব দূর করুন মাত্র ১৫ মিনিটে, ঘরের তৈরি ফেস প্যাক

হতবাক কাণ্ড! ছক কষে স্ত্রীকে সাপের ছোবল মারিয়ে খুন স্বামীর

snake

কোল্লামঃ হতবাক হওয়ার মত এক কাণ্ড, যাতে প্রমাণ না পাওয়া যায় তার জন্য বেছে নেওয়া হল বিষধর চন্দ্রবোড়া! কেরলে এক ব্যক্তি তার স্ত্রীকে মারতে চন্দ্রবোড়া ব্যবহার করল। তাঁর স্ত্রীর বয়স ছিল ২৫। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশও অবাক, রাতে ঘুমের মধ্যে সাপটিকে দিয়ে স্ত্রীর ঘাড়ে ছোবল মারিয়ে স্ত্রীকে মেরে দিল স্বামী।

কেরলের পতনমথিত্তা জেলার আদুরের ঘটনা এটি। বেসরকারি ব্যাঙ্কের কর্মী সুরজ, তাঁকে গ্রেফতার করেন পুলিশ। জানা গেছে, সুরজ নাকি ব্যাঙ্কের কাজের পাশাপাশি স্নেক ক্যাচারও। তিনি নাকি কেউটে ও চন্দ্রবোড়া সাপের বিষ সাপ্লাইয়ের ব্যবসা করে। তাঁর স্ত্রীকে খুন করতে বেছে নেয় ওই সাপের বিষকেই।

আরও পড়ুনঃ ৯২ জনের মৃত্যু করাচিতে ঘটে যাওয়া প্লেন দূর্ঘটনাতে

সুরজের মোবাইল চেক করে দেখা গিয়েছে, গত তিন মাস ধরে সে সাপের ভিডিও ও সাপের বিষ নিয়ে প্রছুর সার্চ করে, তারপর তার এক সুরেশ নামের বন্ধু্র কাছ থেকে সাপ জোগাড় করে। ও স্ত্রীকে খুন করেন সাপের ছোবল মারিয়ে।

আরও পড়ুনঃ ভারতের পাশে আমেরিকা, করোনার মোকাবিলায় ভেন্টিলেটর দিয়ে সাহায্য আমেরিকার

মদের দামের উপর বসছে ‘স্পেশাল করোনা ফি’

special corona fee in liquor

নয়াদিল্লিঃ দিল্লিতে সোমবার মদের দোকান খোলার পর থেকে মানুষের ভিড় দেখার মতো। আর সেই মানুষের উৎসাহ ও ভিড় কে কীভাবে সরকারি উপার্জনে পরিণত করবে, তা ভাবছে দিল্লি সরকার। তাই আজ থেকে দিল্লিতে মদের উপর বিশেষ কর বসতে চলেছে। সেই কর কে বলা হচ্ছে ‘বিশেষ করোনা ফি’।

আরও পড়ুনঃ আটার প্যাকেটে অর্থ সাহায্যের বিষয়ে কী বললেন আমির খান?

একজন ক্রেতাকে মদের দামের ৭০ শতাংশ কর দিতে হবে। ছাপার অক্ষরে যে MRP(maximum retail price) লেখা থাকে তার ৭০ শতাংশ কর দিতে হবে। আজ থেকেই এই নিয়ম কার্যকর করবে দিল্লি সরকার দাবি ছিল এমনটাই। তারপরে বেশ গভীর রাতে দিল্লি সরকারের অর্থ দফতর এই ঘোষণা করে।

আরও পড়ুনঃ ফেসবুকের পরে সিলভার লেক অর্থ বিনিয়োগ করলো জিও তে

দাম কেমন হবে! একটা মদের বোতলের দাম যদি ১০০০ টাকা হয়, তাহলে ক্রেতাকে ১৭০০ টাকা দিতে হবে।

সেপ্টেম্বরের মধ্যে তৈরি হয়ে যাবে করোনার ভ্যাকসিন

corona vaccine made by september

লন্ডনঃ এখন গোটা বিশ্বের একটাই প্রশ্ন, করোনা ভ্যাকসিন কবে আসবে বাজারে? করোনা ভাইরাসের টিকা তৈরির গবেষণায় নেমে পড়েছে চিন, আমেরিকা, ভারত সহ আরও অনেক দেশের গবেষকরা। কোথাও না কোথাও থেকে আশার খবর আসছে প্রতিনিয়ত। করোনার প্রতিষেধক এখনও তৈরি হয়েগেছে, এখনও এমন ১০০ শতাংশ দাবি এখনও কেউ করতে পারেননি। এবার আশার খবর শোনালেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিজ্ঞানী সারা গিলবার্ট। তাঁর দাবি, এ বছরের সেপ্টেম্বরের মধ্যেই নাকি তৈরি হয়ে যাবে করোনার ভ্যাকসিন।

গবেষক গিলবার্ট জানিয়েছেন, করোনার প্রতিষেধক তৈরির কাজ করছেন তাঁরা। তাতে সাফল্যও পেয়েছেন। বিজ্ঞানীদের বিশ্বাস, করোনা ঠেকাতে এই ভ্যাকসিন ৮০ শতাংশ সফল হবে। এই বছরই সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে এই প্রতিষেধক তৈরি করা সম্ভব হবে বলে তিনি মনে করছেন।

আরও পড়ুনঃ ড্রোনের সাহায্যে পাঠানো হয়েছে পান মশলা, ভিডিও ভাইরাল

মহামারীর মতো বৃদ্ধি পেয়েছে পর্নোগ্রাফি, ভারতে বৃদ্ধির হার ৯৫ শতাংশ

india watch porn

দেশ তথা সমগ্র বিশ্বের মানুষ এখন ঘরবন্দি। আর সেই সুযোগে বৃদ্ধি পেয়েছে পর্নোগ্রাফি দেখাও। সেই রকমভাবেই তথ্য উঠে এল সামনে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১ মাসের বেশি লকডাউন পালন করা হচ্ছে। তারই ফাঁকে বেড়েছে পর্ন দেখার মানুষের। এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এল বিশ্বের সব থেকে বড় পর্ন সাইট পর্নহাবের কাছ থেকে।

পর্নহাব তার রিপর্ট থেকে জানিয়েছে প্রতিটি দেশে মানুষ গৃহবন্দী থাকায় তারা সুযোগ পেলেই চলে আসছে তাদের সাইটে। ভারতে অনেক ওয়েবসাইট ব্লক করা আছে। তবে মিরর ডোমেন কে কাজে লাগিয়ে অনায়াসে ব্যবহার করা যায় ব্লক করা সাইটগুলি।

আরও পড়ুনঃ উষ্ণতায় ভরপুর ভিডিও, নেটদুনিয়ায় ঝড় তুললেন রিয়া সেন

শুধুমাত্র যে ভারতে বৃদ্ধি হয়েছে তা নয়। ভারত ছাড়াও দেশের তালিকায় রয়েছে জার্মানি, ফ্রান্স, ইতালি, রাশিয়া, সাউথ কোরিয়া, স্পেন, সুইজারল্যান্ড, এবং আমেরিকা।

পর্নহাবের তথ্য অনুযায়ী ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি হয়েছে ফ্রান্সে, ২২ থেকে ২৫ শতাংশ জার্মানিতে, ৫০ শতাংশ রাশিয়াতে, ৬০ শতাংশ স্পেনে, ২৫ শতাংশ সুইজারল্যান্ডে।

সাউথ কোরিয়াতে লকডাউনে সব কিছু সম্পুর্নভাবে বন্ধ ছিল না। তাই সেরকম ভাবে বৃদ্ধি লক্ষ করা যায়নি।

তবে ভারতে বৃদ্ধি ভালোভাবেই দেখা গেছে। প্রায় ৯৫ শতাংশ হার বৃদ্ধি পেয়েছে লকডাউন ডাকার পর থেকে। ভারতে লকডাউন আরম্ভ হয় ২৪ মার্চ রাত থেকে। আর তার পরেই বাঁধন ছাড়া ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে পর্ন দেখার।

আরও পড়ুনঃ বাংলার বিভিন্ন জায়গায় মানা হচ্ছেনা লকডাউন, চিঠি দিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

ড্রোনের সাহায্যে পাঠানো হয়েছে পান মশলা, ভিডিও ভাইরাল

drone-delivers-pan-masala-video

দেশে লকডাউন থাকায় মানুষ মানুষের কাছাকাছি যেতে পারছেনা। কথা বলতে পারছেনা একে অপরের সাথে। কোনো জিনিস কিনতে গেলেও দূর থেকে কথা বলতে হচ্ছে। এরই মাঝে একটা ভিডিও সোশাল মিডিয়েয় ভাইরাল হয়ে গেল।

ভিডিওতে দেখা যায় এই ড্রোনের সাহায্যে একটি জিনিস পাঠানো হয়েছে। একটি মানুষ অপেক্ষা করে আছে সেই জিনিসটাকে নেওয়ার জন্য। কিন্তু এল তো এল পান মশলা তাও আবার ড্রোনে করে। দেখুন সেই ভিডিও।

দেশের কিছু জায়গাতে, দেশের বাইরে বিভিন্ন দেশে ড্রোনে করে জিনিসপত্র ডেলিভার হয়ে থাকে। আমাদের দেশেও সেই রকম করার আলোচনা চলছিল বিভিন্ন শিল্পমহলে। তবে তার মাঝেই এসে কড়েছে করোনা ভাইরাস। এই মহামারি কাটিয়ে উঠলে ড্রোন ব্যবস্থার চালু করা হতে পারে। আবার এটাও হতে পারে এই রোগের ফলে দেশে কুরিয়ার কম্পানিগুলি মানুষের বদলে শক্তিশালি ড্রোনের ব্যবহার করে ডেলিভারি পরিসেবা চালু রাখতে পারে। তবে সবই উত্তর লুকিয়ে আছে ভবিস্যতের কোলে।

যুবক সিঙ্গারা ‘অর্ডার’ করলেন করোনা হেল্পলাইনে

calls covid 19 helpline for samosas

সারা দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন করোনার জন্য। এই সময়ে আম জনতার যাতে কোনো কোনোরকম সমস্যা না হয় তার জন্য বেশ কিছু এলাকার পুলিশ প্রশাসন বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রয়োজনীয় খাদ্য ও ওষুধপত্র পৌছে দেওয়ার দায়িত্ত নিয়েছে। খাবার বা ওষুধপত্রের জন্যেও মানুষকে যাতে বাড়ির বাইরে না বেরোতে হয় তার জন্য প্রশাসন জরুরি ভিত্তিতে বিশেষ হেল্পলাইন চালু করেছে। সেই জরুরি পরিষেবার হেল্পলাইনে ফোন করে কি না শেষমেস সিঙ্গারা অর্ডার করলেন এক যুবক।

এই অদ্ভুত ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের রামপুরে। যুবক এই করোনা হেল্পলাইনে ফোন করে সিঙ্গারা খেতে চান। ওই যুবক নাকি গোটা ঘটনাটা নিছক রসিকতার ছলে করেছিলেন। পুলিশও বিষয়টি বুঝতে পারে। এই রসিকতার ফলাফলও বেশ চমকপ্রদ।

করোনা হেল্পলাইনে ফোন করে সিঙ্গারা অর্ডার করা ওই যুবকের হাতে তার কাঙ্খিত খাবারটি স্থানীয় প্রশাসন তুলে দিয়েছেন। তবে জরুরি পরিষেবার হেপ্ললাইনে ফোন করে রসিকতার জন্য ওই যুবককে শাস্তি দিয়েছেন পুলিশ। শাস্তি হিসাবে তাঁকে ওই এলাকার নর্দমা পরিস্কার করিয়েছে পুলিশ। এই গোটা ঘটনাটি অঞ্জনেয়া কুমার সিং, রামপুরের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তাঁর টুইটার হ্যান্ডেলে পোস্ট করেন।

নাক থেকে রক্ত পড়ছে। তবুও দায়িত্ব পালনে নেই কোনো ছুটি

a-girl-working-for-24-hours-and-bleeding-from-nose-for-wearing-musk

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এল। এই ভিডিওতে দেখা যায় এক মহিলাকে। যিনি হতে পারেন ডাক্তার অথবা কোনো মেডিকাল বিভাগের সাথে জড়িত ব্যাক্তি। তিনি মুখে মাস্ক পরে আছেন। কিন্তু যেই তিনি মুখ থেকে মাস্ক সরালেন সঙ্গে সঙ্গেই নাক থেকে রক্ত পড়তে শুরু করল। সেই রক্ত পড়া থামছে না। তাই বার বার তুলা দিয়ে নাক মুছে রক্ত পরিস্কার করছেন তিনি।

সমগ্র বিশ্ব জুড়ে করোনার আক্রমনের ফলে ডাক্তার, নার্স ও মেডিকাল বিভাগের সাথে যুক্ত ব্যাক্তিদের কোনো করম ছুটি নেই। তারা দিন রাত মানুষের সেবায় নিজেদেরকে সপে দিয়েছেন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে দেখা গেছে ডাক্তাররাই চিকিৎসা করতে করতে শিকার হচ্ছেন করোনায়।

@rashu48

feeling blessed 🙏🙏##LifebuoyKarona ##handwashchallenge ##shernigang ##tiktoktraditions

♬ original sound – Miss rashu

এই ভিডিওটি প্রমান করে দিচ্ছে যে তারা কিভাবে মানুষের সেবায় নিযুক্ত আছেন। অজ্ঞাত নামের এই ব্যাক্তির TikTok -র অ্যাকাউন্ট থেকে পাওয়া গেছে এই ভিডিও।