টিকটকে ভিডিও বানাতে গিয়ে তরুনি খেলেন কুকুরের কামড়, ভিডিও ভাইরাল

Viral Social Media Video

টিকটক মানুষের মনে এমনভাবে গেঁথে গেছে যে যেখানেই সুযোগ পায় সেখানেই ভিডিও বানাতে শুরু করে দেয় টিকটকাররা। তার ফলে বহু তরুন-তরুণীর জীবন গেছে অকালে। মানুষ সেই তথ্য জানে তবুও, জীবনের ঝুকি নেয় মানুষ।

তার উপরে ভারত-চিন সম্পর্ক ভালো না থাকায় ভারতের মানুষ চিনা অ্যাপ ব্যবহার করা পছন্দ করছে না। ফলে বহু মানুষ চিনা অ্যাপ ফোন থেকে ডিলিট করে ফেলছে। এরই মাঝে নেট ব্যবহারকারীদের চখে এল এক টিকটক ভিডিও। যেখানে এক তরুণীকে কুকুরে কামড়তে দেখা যাচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ গাড়ির ভিতরে যৌন সঙ্গম, রাষ্ট্র সংঘের আধিকারিকের ভিডিও ভাইরাল

তরুণী সেই সময় টিকটকের জন্য ভিডিও বানাচ্ছিল। সেই সময় কিছু ব্যবধানে উপস্থিত থাকা এক কুকুর এসে কামড় দেয় তরুণীর পায়ে। সেই সময় ওই তরুণী “যারা যারা টাচমি” গানে টিকটক ভিডিও বানাচ্ছিল।

কুকুরের কামড় জোড়ালো না থাকলেও তরুণীকে ইনজেকশন নিতে হয়।

আরও পড়ুনঃ সুশান্ত কি বেঁচে ছিলেন, হাতের আঙুল নড়তে দেখা যায় ভিডিওতে

গাড়ির ভিতরে যৌন সঙ্গম, রাষ্ট্র সংঘের আধিকারিকের ভিডিও ভাইরাল

United Nation Official having sex in car

রাষ্ট্র সংঘের এক আধিকারিকের যৌন কেলেঙ্কারি গোটা বিশ্বের সামনে এল। সেই ভিডিও ভাইরাল হল। সেই নিয়েই রীতিমত শোরগোল পড়েছে বিশ্ব জুড়ে। রাষ্ট্র সংঘের এক আধিকারিককে গাড়ির ভিতর এক মহিলার সাথে সঙ্গমে লিপ্ত অবস্থায় দেখা গেছে। সেই ভিডিও ভাইরাল নেটদুনিয়াতে। ভিডিও সামনে আসতেই টনক নড়েছে রাষ্ট্র সংঘের। এই ঘটনার তদন্ত হবে বলে জানা যাচ্ছে সংস্থার পক্ষ থেকে।

ভিডিওটি নেওয়া হয়েছে তেল আবিবের একটি রাস্তা থেকে। ভিডিও নেওয়া ব্যক্তি সেই সময় সেই রাস্তার ধারের এক ফ্ল্যাটে ছিলেন। গাড়ির কাঁচ লাগানো থাকলেও আলো পড়াতে সব কিছু বাইরে থেকে দেখা যাচ্ছিল। লাল পোষাকের এক মহিলা রাষ্ট্র সংঘের এক আধিকারিকের সঙ্গে সঙ্গমে লিপ্ত ছিল। তবে ওই গাড়ির ভিতরে থাকা মহিলা ও পুরুষের মুখ দেখা যায়নি। কিন্তু সঙ্গমের দৃশ্য ধরা পরে ক্যামেরাতে। দেখা গেছে আধিকারিক, লাল পোষাকে মহিলা ছাড়াও এক ব্যক্তি সামনের সিটে বসে থাকতে দেখা যায়।

আরও পড়ুনঃ ‘অর্ধনগ্ন’ অবস্থায় কলকাতার রাস্তায় এক নেশাগ্রস্ত তরুণী, উদ্ধার করল পুলিশ

যৌনতা নিয়ে কড়া ব্যবস্থা রয়েছে রাষ্ট্র সংঘে। যৌন শোষনের বিরুদ্ধে বার বার সোচ্চার হয়েছে রাষ্ট্র সংঘ। এই বিষয়টি সামনে আসতেই খতিয়ে দেখা হবে বলে জানায় সংস্থার পক্ষ থেকে। খুব তারাতাড়ি গাড়িতে থাকা ব্যক্তিকে চিহ্নিত করা হবে বলে জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ সিবিএসই, আইসিএসই দশম-দ্বাদশ মুল্যায়ন কিভাবে করা হবে, তা জেনে নিন

‘অর্ধনগ্ন’ অবস্থায় কলকাতার রাস্তায় এক নেশাগ্রস্ত তরুণী, উদ্ধার করল পুলিশ

Kolkata Police

দেশ এখন এক মহা সংকটময় পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। কলকাতায় করোনা ভাইরাসের জেরে মানুষের জীবনযাত্রার বদলে গিয়েছে। এই কঠিন সময়ে এক অস্বস্তিকর অবস্থার মধ্যে পড়তে হয় কলকাতা পুলিশদের। রাতের কলকাতা শহরে হঠাৎ টপলেস অবস্থায় ঘুরতে দেখা যায় এক তরুণীকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় কলকাতা পুলিশ। সেই তরুণীকে নিয়ন্ত্রনে আনতে রীতিমত কাল ঘাম ছুটে যায় পুলিশের। যানা যায়, নেশাগ্রস্ত আবস্থাতে অর্ধনগ্ন হয়ে ঘুরছিল ওই তরুণী।

মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটে রেড রোদের উপর। পথচারীদের কাছ থেকে খবর পেয়ে ছুটে আশে ময়দান থানার পুলিশ। প্রথম দিনে বেশ মুশকিলে পড়তে হয় তাদের। নিয়ন্ত্রনে আনা যাচ্ছিল না তাঁকে। সেই মুহুর্তে রেড রোডে উপস্থিত হওয়া পুলিশের দলে কোনো মহিলা পুলিশ না থাকায় সেই তরুণীর কাছে যেতে পারেনি তারা। ঘন্টাখানেকের মধ্যে মহিলা পুলিশের দল এলে হেফাজতে নেওয়া হয় নেশাগ্রস্ত সেই অর্ধনগ্ন তরুণীকে।

আরও পড়ুনঃ কলকাতা বিমানবন্দর থেকে উদ্ধার কোটি টাকার পাখি, আটক ২

সূত্রের খবর, তরুণী থাকেন পদ্মপুকুরে। বাড়তে আছেন মা ও ছোটো ভাই। বাবা মারা গেছেন ২০১০ সালে। জানা যান, ওই তরুণী মঙ্গলবার তার এক পুরুষ সঙ্গীর সাথে ময়দানে বসে মদ্যপান করেন। তার পর সেখান থেকে অর্ধনগ্ন অবস্থাতে হাঁটতে শুরু করেন। পথচারীদের কাছ থেকে প্রথম খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছায়। কিভাবে এই ঘটনাটি ঘটেছে তাই খতিয়ে দেখছে কলকাতা পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ থামছে না পুরীর রথযাত্রা,শর্ত সাপেক্ষে উৎসবের অনুমতি সুপ্রিম কোর্টের

মুখে অজস্র মৌমাছি নিয়ে চার ঘন্টা! গিনেস বুকে খেতাব পেলেন কেরলের তরুন

hold Guinness Records by Indian

এবার মৌমাছি নিয়ে দেখা গেল কেরামতি। এ আবার কোনো সাধারন কেরামতি নয় চলল ৪ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে। মৌমাছি অনেকের কাছে এক ভয়ানক পতঙ্গ, এক আতঙ্কের কারণ। কম বেশি সবারই রয়েছে হূলের ভয়।

কিন্তু এই ভয়ানক পতঙ্গের সাথে চারঘন্টা মুখে ও মাথায় রেখে বসে থাকলেন কেরলের এক তরুন। নেচার এমএস নামের এই তরুণ মৌমাছি নিয়ে ৪ ঘন্টা ১০ মিনিট ৫ সেকেন্ড সময় কেটিয়েছে। ফলে তিনি গড়েছেন বিশ্ব রেকর্ড। জানা যায়, এই তরুণের মৌমাছি হল প্রিয় বন্ধু।

আরও পড়ুনঃ থামছে না পুরীর রথযাত্রা,শর্ত সাপেক্ষে উৎসবের অনুমতি সুপ্রিম কোর্টের

দু’বছর আগে মানুষের মধ্যে একইভাবে মৌমাছিদের সংরক্ষণ ও মধু চাষ বিষয়ে সচেতনতা বাড়িয়ে তলায় গড়েছিলেন বিশ্ব রেকর্ড।

আরও পড়ুনঃ ১০ এর বদলা ১৫, ভারতের হাত থেকে মুক্তি পেল ১৫ চিনা আর্মির সদস্য

এবার খুলছে তারাপীঠ মন্দির, বাইরে থেকেই চলবে ভক্তদের দর্শন

Tarapith Temple

বহু দিনের প্রতিক্ষার পর ভক্তদের জন্য এবার খুলে দেওয়া হবে তারাপীঠ মন্দিরের দরজা। তবে গর্ভগৃহে প্রবেশ করা যাবে না। মায়ের দর্শন চলবে দূর থেকেই। রথের দিনে অর্থাৎ মঙ্গলবার থেকেই ভক্তরা প্রবেশ করতে পারবে মন্দির চত্বরে। তবে এবছর তারাপীঠ থেকে আর রথ টানা হবে না।

করোনা ভাইরাসের কারনে প্রায় তিন মাস কেটে গেছে। করোনা ভাইরাসের কারনে গত ১৯ মার্চ মাসে বন্ধ করা হয়েছিল তারাপীঠের দরজা। নিষেধাজ্ঞা জারী করা হয়েছিল ভক্তদের উপর। তবে নিত্যপূজোর উপর কোনো রকম বাঁধা আসেনি। এইভাবে কেটে গেছে প্রায় তিনটি মাস।

আরও পড়ুনঃ করোনায় আক্রান্ত শিলিগুড়ির পুরনিগম অশোক ভট্টাচার্য; বন্ধ কাজ

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পয়লা জুন থেকেই রাজ্যের প্রতিটি ধর্মীয় স্থান খুলে দেওয়ার কথা জানালেও তারাপীঠের মন্দির কমিটি সেই সময় মন্দির খুলে দেওয়াতে প্রস্তুত হয়নি। এর পরে রবিবারের মন্দির কমিটির বৈঠকে সিন্ধান্ত নেওয়া হয় যে মঙ্গলবার থেকেই মন্দির চত্বর খোলা হবে পূর্ণ্যার্থীদের জন্য।

আরও পড়ুনঃ চিনকে জবাব দেওয়া শুরু, পিঠে নয় পেটেই হানা হল প্রথম আঘাত

মাত্র ৯৫ টাকাতে বিক্রি হচ্ছে একটি গোটা বাড়ি, ইতালির শহর চিনকুইফ্রন্ডে

house selling for rs 95 in italy

কথাটা পড়ে বা শুনেই অবাক হওয়ারই কথা। কিন্তু বাস্তবে তাই ঘটেছে। দেশে ৯৫ টাকাতে একটা পরিবারের এক দিনের পেট ভরাতেই কম পড়ে যায়। সেই মূল্যে পাওয়া যাচ্ছে একটা আস্ত বাড়ি। এই অবিশ্বাস্য ঘটনাটি ঘটেছে ইতালির একটি ছোটো শহর চিনকুইফ্রন্ডে।

সেই শহরের মেয়র কিছু দিন ধরে একটি নতুন পদক্ষেপ নিয়েছেন। ‘অপরেশন বিউটি’ নামক এক প্রকল্প শুরু করেছেন তিনি। শহরের যুবক ও যুবতীরা কাজের সন্ধানে বড় শহরে চলে যায়। তার ফলে এই রকম ছোটো শহর গুলিতে প্রচুর বাড়ি ফাঁকা হয়ে যায়। আর তাই তিনি অপরেশন বিউটি নামক প্রকল্পের সাহায্য নিয়েছেন।

নতুন করে শহর গড়ে তুলতে চাইছে সেখানের প্রশাসন। সেই ছোটো শহরের বেশিরভাগ জায়গাই জনমানব শুন্য হয়ে পড়েছে। কোনো মানুষ নেই সেই জায়গাগুলিতে।

আরও পড়ুনঃ শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন থেকে মিলল প্রচুর সোনা ও টাকা, উত্তেজনায় খড়গপুর

জায়গা যে খারাপ তা একেবারে নয়। শহরের এক পাশে রয়েছে পাহাড়, অন্য পাশে রয়েছে সমুদ্র। শহর থেকে ১৫ মিনিট দুরেই শুরু হয়েছে সমুদ্রতট। তাই বলাই যায় খুবই মনোরম পরিবেশ। এই জন শূন্যতার কারণ করোনা একেবারেই নয়। কারণ এই ছোটো শহরে কোনো করোনা রোগী নেই। আর তাছাড়া ইতালি নিজেকে অনেকটাই সামলে নিয়েছে। এখন আর ইতালির কোথাও লকডাউন নেই। পর্যটকদের জন্যেও উন্মুক্ত করা হয়েছে ইতালির দরজা।

এই শহরটিকে আবার মানুষে ভরে তোলার জন্যই এই পদক্ষেপ নিয়েছে সেখানের প্রশাসন। তবে বাড়িগুলি নিতে গেলে মেনে চলতে হবে কিছু শর্ত। সেখানে বসবাস করার সাথে সাথে বাড়িগুলির সংস্করণও করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ বাঙালি বিজ্ঞানীর কথাই কি তবে ঠিক, ভারতে ২১ লাখ সংক্রমণ জুলাইয়ের মধ্যে!

আগামী ১২ ঘন্টায় শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রুপ ‘আমফান’ রাজ্যে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস

amphan in west bengal

আগামী ১২ ঘন্টার মধ্যে এক অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রূপে আমফান আছড়ে পড়বে বাংলার উপর। এখন আমফানের অবস্থান দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরের মধ্যভাগে। আর কিছু সময়ের মধ্যেই বাংলায় ঢুকে পড়বে এই আমফান, এমনটাই জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, এই আমফান ২০ তারিখ সন্ধ্যে বেলার দিকে এক অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হিসেবে পশ্চিমবঙ্গের সমুদ্র উপকূল সংলগ্ন এলাকাগুলিতে আছড়ে পরার সম্ভবনা রয়েছে। তবে ১৯ তারিখ উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি এবং কলকাতা ও পার্শবর্তী এলাকাগুলিতে মাঝারি বৃষ্টি ও কিছু জায়গাগুলিতে ভারী বৃষ্টিরে সম্ভবনা রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ করোনার প্রকোপ এবার রাষ্ট্রপতি ভবনেও

আপাত দৃষ্টিতে এর আগেও বিভিন্ন ঘূর্ণিঝড় এই বাংলার বুকে এসেছে। তবে এই ঘড়ের গতিবেগ থাকবে প্রায় ১২০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা। এই গতিবেগ সর্বচ্চ ১৫৫ কিলোমিটার পর্যন্ত বেড়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। তাই মৎস্যজীবিদের ১৮ তারিখ থেকে মৎস্যশিকার করতে যাওয়াতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ এক দেশ এক শিক্ষা ব্যবস্থার উপস্থাপনার কথা জানালেন অর্থমন্ত্রী

২৫০ জন মুসলমান হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত হওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে হরিয়ানায়

muslims to hindu

শুক্রবার, হরিয়ানার হিশার জেলার বিধমিরা গ্রামে ৪০ টি মুসলিম পরিবারের 250 জন মুসলমান হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। গ্রামের সেই সব মুসলিম পরিবারের লোকেরা হিন্দুদের মতো জীবনযাপন করত, তবে কেবল মৃতের শেষকৃত্যে মৃতদেহকে দাফনের ইসলামিক রীতি অনুসরণ করতো। এই সব পরিবারগুলি স্বাধীনতার আগে দানোদা কালান গ্রামে বাস করত।

মাজিদ নামে এক গ্রামবাসী এই ধর্মান্তরের ভিত্তিতে বলেছিলেন, “আমরা যখন আমাদের মৃতদের কবর দিই, তখনই গ্রামবাসীরা আমাদের দিকে অন্যভাবে তাকিয়ে থাকে। তাই, বাচ্চাদের ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিই যে আমরা ধর্মান্তরিত হব।” তিনি স্বীকার করেছেন যে লোকেরা এখন শিক্ষার কারণে তাদের অতীত সম্পর্কে জানে।

আরও পড়ুনঃ রিয়াজ নাইকুর মৃত্যু কেন্দ্র করে শোক সভা, প্রকাশ্যে ভিডিও

স্থানীয় বাসিন্দা সাতবীর যিনি সম্প্রতি হিন্দু রীতিনীতি অনুসারে তাঁর ৮০ বছরের বৃদ্ধা মা ফুলি দেবীকে দাফন করতে হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত হয়েছিলেন, তিনি স্বীকার করেছেন যে তিনি ডুম জাতির অন্তর্ভুক্ত ছিলেন, যার পরিবার আওরঙ্গজেবের শাসনামলে ইসলাম গ্রহণ করেছিল।

মুসলিম কল্যাণ সংস্থার হরিয়ানার রাজ্য সভাপতি হারফুল খান ভাট্টি দাবি করেছেন যে, ইসলাম থেকে হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত হওয়া গণ ধর্মীয় রূপান্তরই ছিল ‘বর্ণ ভিত্তিক সংরক্ষণ পাওয়ার পেছনে লোভ’। ভাট্টির মতে, ১৯৫১ সালের বিজ্ঞপ্তির কারণে মুসলিম ও খ্রিস্টানরা ডুম জাতের কোটা পেতে পারেন না। আর সেই কারনেই এই পরিবের্তন, বলে তিনি মনে করছেন।

আরও পড়ুনঃ তবলিগি জামাতের প্রধানের ওপর চলছে তদন্ত, নজরে ৩০ টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট

দেখা মিলল দুই মাথাওয়ালা এক বিরল প্রজাতীর সাপের, দেখুন সেই ভিডিও

wolf snake

একটি সাপের দেখা মিলিলেই শরীর যেন শিউড়ে আশে। হাত-পা যেন ঠাণ্ডা হয়ে যায়। তার মধ্যে যদি সেই সাপের আবার দুমি মাথা হয়। সাধারনত এই ধরণের সাপের দেখা খুব একটা দেখা পাওয়া যায়না বললেই চলে। কিন্তু দেখা মিলেছে এই রকম দুই মাথা যুক্ত সাপের।

ওড়িশার কেওনঝাড় জেলার দেহঙ্কিকোট ফরেস্ট রেঞ্জের একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে এই দুই মাথা বিশিষ্ট সাপটিকে। সাপটির ভিডিও প্রকাশে আসতেই ভাইরাল হয়ে যায়। আর মানুষের মনে জেগে ওঠে নানা রকমের প্রশ্ন।

এই সাপটির দুইটি পৃথক মাথা রয়েছে, চারটি চোখ এবং দুইটি জিভ রয়েছে। শুধু এই সাপের শরীর একটাই। ভিডিওতে সাপটি এঁকেবেঁকে চলার চেষ্টা করছে। এই ভিডিওটি তুলেছে সেখানের কর্মরত বনো দফতরের কর্মী সুশান্ত নন্দা। জানা গিয়েছে, এই সাপের কোনো বিষ নেই, নাম নেকড়ে সাপ (Wolf Snake)।

নেশার ঘোরে সাপকে কামড়ে টুকরো করল এক ব্যক্তি

snake

লকডাউনের জেরে বহুদিন ধরে বন্ধ হয়ে পড়েছিল মদের দোকান। কিন্তু তৃতীয় দফার লকডাউনের প্রথম দিন থেকেই দেশের বিভিন্ন রাজ্যে খুলে দেওয়া হয় মদের দোকান। ৪০ দিনের পরে মদের দোকান খোলার কথা শুনেই ভোর থেকে লাইন পড়ে মদ্য প্রেমিদের। আবার অনেক জায়গায় দেখা যায় লকডাউনের বিধি লঙ্ঘন করেই মানুষ কেনাকাটা করছে।

এরই মাঝে ভয়ানক কান্ড ঘটে গেল এক মদ্যপ ব্যক্তির সাথে। মোটর বাইকে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন। ফেরার পথে রাস্তায় এক সাপের দেখা পেতেই প্রচণ্ড রেগে যান ওই ব্যক্তি। তারপরই চিৎকার করতে করতে সাপটাকে কামড়াতে থাকেন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় স্থানীয় মানুষ। তারা দেখেন যে, ওই ব্যক্তি মদ খেতে খেতে সাপটাকে কামড়ে টুকরো টুকরো করে দেন।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানের বায়ুসেনায় যোগ দিলেন প্রথম হিন্দু যুবক

জানা গিয়েছে, সাপটি র‍্যাট স্নেক প্রজাতির ছিল।

এই ঘটনাটি ঘটেছে কর্ণাটকের কোলার জেলার মুসতুর নামক এক প্রত্যন্ত গ্রামে। বন দফতরের কর্মী এসে পৌছানোর আগেই সাপটি মারা যায়। ঘটনাতে ওই মদ্যপ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুনঃ ‘সব টাকা নিন, আপনার স্বামীকে দিন’, আজব কাণ্ড প্রেমে হাবুডুবু মহিলার