বাংলো ছাড়ার আগে কোন বিজেপি নেতাকে চা খেতে ডাকলেন প্রিয়াঙ্কা!

Indian Political Leader Priyanka Gandhi

নয়াদিল্লিঃ পয়লা অগাস্টের মধ্যে প্রিয়াঙ্কা গান্ধিকে বাংলো ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছিল দিল্লি সরকার। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই বাংলো ছাড়তে চান প্রিয়াঙ্কা। তার আগেই রাজনৈতিক সৌজন্য দেখিয়ে বিজেপি নেতা অনিল বলুনিকে আমন্ত্রণ জানালেন চা পানের জন্য। প্রিয়াঙ্কার পর এই বাংলোটি রাজ্যসভার সাংসদ অনিল বলুনিকে বরাদ্দ করা হয়েছিল।

দিল্লির লোধি এস্টেটের এই সরকারি বাংলোর দীর্ঘদিনের বাসিন্দা ছিলেন প্রিয়াঙ্কা। তাঁকে জুলাই মাসেই বাংলো ছাড়ার নোটিস পাঠায় কেন্দ্রীয় সরকার। প্রিয়াঙ্কা বর্তমানে যেহেতু এসপিজি নিরাপত্তা পান না, সেইজন্য তিনি এই বাংলো পাওয়ার যোগ্য নন বলেই যুক্তি দেখানো হয়।

আরও পড়ুনঃ সিনেমা হল কবে খুলবে! প্রস্তাব কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের

শোনা যাচ্ছে যে, রবিবারই আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বিজেপি নেতা অনিল বলুনিকে। এ বিষয়ে জানার জন্য বিজেপি নেতাকে ফোনও করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি ফোন ধরেননি। তবে বিজেপির সাথে যতই রাজনৈতিক সংঘাত থাকুক না কেন, বলুনিকে আমন্ত্রণ জানিয়ে রাজনৈতিক সৌজন্য বজায় রাখলেন প্রিয়াঙ্কা।

আরও পড়ুনঃ করোনার ভ্যাকসিন কবে আসতে পারে, জানিয়ে দিল হু

প্রাতঃ ভ্রমনে আক্রান্ত রাজ্য বিজেপি প্রধান দিলীপ ঘোষ, ভাঙা হল একাধিক গাড়ি

west-bengal-bjp-chief-dilip-ghosh-attacked-during-morning-walk

প্রতিদিনের নিয়ম অনুযায়ী সকালে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে ছিলেন প্রাতঃ ভ্রমনের জন্য। কথা ছিল তার সাথে চা আড্ডাটাউ হবে। কিন্তু নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছানোর আগেই সামনা করতে হল কিছু মানুষের। সেই খানেই আক্রান্ত হলেন তিনি।

ঘটনাটি ঘটেছে রাজারহাটে। কলকাতা থেকে ৫ কিমি এর মধ্যেই। প্রতিদিনের ন্যায় বুধবার সকালে প্রাতঃ ভ্রমনে বেরিয়ে ছিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ঘটনাটি ঘটেছে রাজারহাট-নিউটাউন এলাকার মধ্যে।

আরও পড়ুনঃ বড় ঘোষণা! আগামী বছর জুন পর্যন্ত ফ্রি রেশন পাবে রাজ্যবাসী

দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেন, স্থানীয় টিএমসি নেতা তাপস মুখোপাধ্যায় রয়েছে এই হামলার পিছনে। তবে তাপস মুখার্জি এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

আরও পড়ুনঃ ভারতে টিকটক সহ ব্যান চিনের ৫৮ টি অ্যাপ

দিলীপ ঘোষ হলেন রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী! বলছে উইকিপিডিয়া

dilip-ghosh-is-the-chief-minister-of-West Bengal-says-wikipedia

আপনি কি জানেন পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী কে? জানি এটা একটা হাস্যকর প্রশ্ন। রাজ্যের প্রতিটি মানুষ এই প্রশ্নের উত্তরে জানাবে মাননীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইন্টারনেটে খুঁজলেও সেই তথ্য উঠে আশার কথা। কিন্তু উঠে আসছে অন্য তথ্য। গুগলে সন্ধ্যান করলে উত্তর আসছে দিলীপ ঘোষ নাকি রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী। এই তথ্য দেখাচ্ছে উইকিপিডিয়া।

উইকিপিডিয়া হচ্ছে একটা অনলাইন তথ্য সম্ভার। যেখানে ব্যাক্ত, বস্তু, ও কোনো বিষয় সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়। বলতে গেলে এই উইকিপিডিয়া বেশ গ্রহনযোগ্য, কারণ এখানের তথ্য খুব একটা ভুল থাকেনা। তাই মানুষও বিশ্বাস করে উইকিপিডিয়ার উপর।

আরও পড়ুনঃ করোনার ভ্যাকসিন আসতে পারে সেপ্টেম্বরেই, জানালো অক্সফোর্ড

সাধারন মানুষ ‘দিলীপ ঘোষ’ লিখে গুগলে অনুসন্ধান করলেই দেখায় তিনি এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। তার পরেই সোশাল মিডিয়াতে এই ঘটনার প্রকাশ ঘটে। মানুষ তখন নালিশ করতে শুরু করে। তখন বিজেপির তরফ থেকে এই তথ্যকে সম্পুর্ন ভুল তথ্য বলে। এই কাজ কে করেছে। কেনই বা করেছে তার কিছুই জানা নেই বলে জানানো হয় বিজেপি থেকে।

সাধারন মানুষ উইকিপিডিয়ার তথ্যকে সম্পুর্নভাবে বিশ্বাস করে থাকে। ভরসা করে উইকিপিডিয়া সঠিক তথ্য প্রদান করছে। সেখানেও ভুল থাকে। সেই কথাই প্রমান করলো এই ভুল তথ্যটি। আসলে উইকিপিডিয়াতে তথ্য প্রদান করে সাধারন মানুষ। যেকোনো ব্যাক্তি উইকিপিডিয়াতে গিয়ে প্রবন্ধ লিখে প্রকাশ করতে পারে। আর তার ফলে সব সময় ভুল তথ্য ধরা তাদের পক্ষে সম্ভবপর নয় তাদের পক্ষে। আর তার কারনেই অনেকসময় ভুল তথ্য থেকে যায়। তবে এইবার ভুল তথ্য সামনে আসতেই উইকিপিডিয়া সাথে সাথেই ঠিক করে নিয়েছে সেই প্রবন্ধ।

আরও পড়ুনঃ এই ১৫টি শহরের সঙ্গে জড়িয়ে করোনার সাথে লড়াইয়ে ভারত জিতবে কিনা!