দুর্গাপুজোর মণ্ডপ নিয়ে এক নতুন প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর

Chief Minister

কলকাতাঃ করোনা আবহে দুর্গাপুজোর প্যান্ডেল হোক খোলামেলা। এমনটাই প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবারে নবান্নের সাংবাদিক বৈঠক থেকে বলেন মুখ্যমন্ত্রী, ‘রাজ্য সরকার গঠিত গ্লোবাল পরামর্শদাতা কমিটির সদস্যরা পুজো মণ্ডপ নিয়ে ভালো পরামর্শ দিয়েছে একটা। আমরাও প্রস্তাব এটা। দুর্গাপুজোর মণ্ডপে যাতে এবারে যথেষ্ট হাওয়া বাতাস ঢোকে সেই ব্যাবস্থা রাখতে হবে, গোটা মণ্ডপটা যাতে বদ্ধ না লাগে। মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাস নিতে অসুবিধা না হয় যাতে। মণ্ডপে হাওয়া বাতাস ঢুকলে জীবাণু থাকলে তা বেরিয়ে যাবে।

আরও পড়ুনঃ চিন নিয়ে এলো নতুন এক পদ্ধতির করোনা টিকা

এবারের পুজো পরিকল্পনা নিয়ে পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে ২৫ সেপ্টেম্বর বসতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী ও পুলিশ প্রশাসন। পুজো প্যান্ডেল তৈরীর ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন যে, বিশেষজ্ঞদের মতে খোলা প্যান্ডেলের বদলে ঢাকা মণ্ডপে ভেন্টিলেশনের ব্যবস্থা রাখলে তা অতটা কার্যকরী হবে না। খোলা হাওয়া বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা রাখা ভালো প্যান্ডেলে। কিন্তু তিনি এও বলেন গোটা প্যান্ডেল ঢাকা থাকবে এমনটা নয়। তিনি বলেন, ‘যেখানে দুর্গা প্রতিমা থাকবে সেই জায়গাটা খোলা রাখতে হবে। কিন্তু যেখানে দারিয়ে মানুষ অঞ্জলি দেবেন ও ঠাকুর দেখবেন সেই জায়গাটা খোলা রাখতে হবে।

আরও পড়ুনঃ করোনা অতিমারীর শেষ কবে, জানালো হু

জেনে নিন কী পরিবর্তন আসতে চলেছে মেট্রো পরিষেবায়!

kolkata Metro

আনলক ৪-এ মেট্রো চালুর ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্র। এই নিয়েই এদিন নবান্নে সরকারের সঙ্গে বৈঠক করে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। নবান্ন সূত্রের খবর, ১৪ কিংবা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে কলকাতায় মেট্রো পরিষেবা চালু করার সম্মত দুই পক্ষেরই। মেট্রো সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলতে পারে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কোভিড গাইডলাইনে, মেট্রো চালু ৭ সেপ্টেম্বর থেকে ছাড় দেওয়া হলেও, এই নিয়ে তাড়াহুড়ো করতে চাইছেনা মেট্রো ও রাজ্য। তাই মেট্রোতে যাতায়াত করার জন্য ১৪ কিংবা ১৫ তারিখ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। পরিষেবা চালু হলে সামাজিক দূরত্ব মানার জন্য কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। নবান্ন সূত্রে খবর, যে মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, একটি রেকে সর্বোচ্চ ৪৫০ জন যাত্রী থাকলে দূরত্ব বজায় থাকবে।

আরও পড়ুনঃ ১ নভেম্বরেই কি আমেরিকার বাজারে আসছে করোনা ভ্যাকসিন! জেনে নিন

রেক-এর সংখ্যা হল ১০০ বা তারও কম। রেক পিছু সাড়ে চারশো যাত্রীকে পরিষেবা দেওয়ার ভাবনা আছে মেট্রোর। কিন্তু, দমদম থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত রেকে মাত্র ৪৫০ জনই থাকবে, এটা নিশ্চিত কিভাবে করা যাবে! মেট্রোর তথ্যই বলছে যে, নোয়াপাড়া থেকে নিউ গড়িয়, এক একটি রেকে ৮টা কামরা থাকে। যাত্রীদের বসার আসন ৩৮৪টি। করোনার জেরে সেই সংখ্যা কমিয়ে করা হয়েছে ১২৮টি। কিছু লোক দাঁড়াতে পারবেন।

ক্রাউড ম্যানেজমেন্টের ব্যাপারে রাজ্য পুলিশের সহায়তা চেয়েছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। তাতে রাজ্য সরকার সম্মতিও দিয়েছে। যাঁদের এখন স্মার্টকার্ড আছে, শুধু তারাই উঠতে পারবেন মেট্রোতে। টোকেন দেওয়া হবেনা। নতুন করে স্মার্টকার্ড দেওয়া হবেনা। এই সময় মেট্রো কর্তৃপক্ষ একটি অ্যাপ তৈরীর কথা ভাবছেন, যা দিয়ে যাত্রীরা জানতে পারবেন কোন মেট্রো রেকে কতজন আছেন। কোন স্টেশনে কতজন অপেক্ষা করছে। প্ল্যাটফর্মে পাশাপাশি কতজন দাঁড়াবে। সেটাও নির্দিষ্ট করার চেষ্টা হচ্ছে। এখন আপাতত সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেট্রো চলবে। অফিস টাইমে দুটি মেট্রোর মধ্যে ফারাক থাকবে ১২ মিনিট। অন্য সময় ১৫ মিনিট।

আরও পড়ুনঃ রাজ্যে ফের শিক্ষক নিয়োগ হতে চলেছে, শীঘ্রই টেটের বিজ্ঞপ্তি

মৃত্যু হওয়ার ২ দিন পরেও ভেন্টিলেটরে করোনা আক্রান্তের দেহ!

Nursing Home

কলকাতাঃ করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর ২ দিন পরেও ভেন্টিলেটরে দেহ রেখে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। করোনা রিপোর্ট পজিটিভ কিনা, তা নিয়েও প্রশ্ন মৃতের পরিবারে। মৃতের পরিবার কড়েয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। মৃত্যুর সময় জানতে মৃতদেহের ময়নাতদন্তের নজরবিহীন সিদ্ধান্ত। অভিযোগ পার্ক সার্কাসের এক নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুনঃ Unlock4-এ নতুন নির্দেশ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের। যাঁর মৃত্যুকে ঘিরে এই অভিযোগ উঠেছে, তাঁর নাম সবর আলি, বাড়ি হুগলীর চণ্ডীতলায়। গত ২৫ অগাস্ট শ্বাসকষ্টের কারণে তাঁকে ভর্তি করে পার্ক সার্কাসের স্বস্তিক সেবা সদন নার্সিংহোমে। ভর্তির দিন থেকেই তাঁকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়।

আরও পড়ুনঃ দায়িত্বহীন ব্যক্তিরা ভারতে COVID-19 মহামারী বাড়াচ্ছে দাবী ICMR-এর

গতকাল গভীর রাতে আগুন বড়বাজারে

fire

কলকাতাঃ বড়বাজারের বহুতলে আগুন। গতকাল রাত আড়াইটে নাগাদ ৫৩, নেতাজি সুভাষ রোডের চারতলা বাড়ির একতলায় আগুন লাগে।এই বাড়িটি ৭০ বছরের পুরানো একটি বাড়ি। এই বাড়িটিতে দোকান ও অফিস রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ মাটি খুঁড়তেই বেরিয়ে এল শিব লিঙ্গ, মহাদেবের দর্শনে নেমেছে মানুষের ঢল

আগুন লাগে একতলায়, দোতলায় আগুন খুব তাড়াতাড়ি ছড়িয়ে পড়ে। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান যে মিটার বক্স থেকে আগুন ছড়ায়। দমকলের চারটি ইঞ্জিনের ঘন্টা তিনেক ধরে চেষ্টা করায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে কিন্তু এখনও ধোঁয়া বের হচ্ছে। বেশ কয়েকটি দোকান ও অফিস ভস্মীভূত হয়ে যায়। ঘটনাস্থলে রয়েছে হেয়ার স্ট্রিট থানার পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ ট্রেন ও মেট্রো পরিষেবা চালু করতে চিঠি পাঠালো রাজ্য

ট্রেন ও মেট্রো পরিষেবা চালু করতে চিঠি পাঠালো রাজ্য

Indian Railway

কলকাতাঃ রেল পরিষেবা পুনরায় চালু করতে চেয়ে চিঠি রাজ্যের। চিঠি দিলেন রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যানকে। চিঠি দিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব। সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনেই চলুক রেল। রেল চলুক রাজ্যের সঙ্গে আলোচনা করে। রাজ্য লোকাল ট্রেন ও মেট্রো চালু করতে চায়।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীরে জঙ্গিদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর রাতভোর চললো গুলির লড়াই

মহারাষ্ট্রের মডেল অনুসরন করা হবে নাকি রেলের দরজা সকলের জন্যই খুলে দেওয়া হবে। এই প্রশ্ন এখন রেলের অন্দরে ঘুরপাক খাচ্ছে। রাজ্য সরকার রেল চালাতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। এ কথা নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানানো হয়েছে। রাজ্য সরকারের থেকে চিঠিও পাঠানো হয়েছে রেলে। এবার কি তবে খুলবে রেলের দরজা!

রেল পরিষেবা চালু করা হলে কী কী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে, তা খতিয়ে দেখতে পূর্ব, দক্ষিণ-পূর্ব ও উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেল ও মেট্রো পরিকল্পনা করেছে নিজেদের মতো। রেলের বিভিন্ন ডিভিশন তাদের ডিভিশনাল আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক করেছে। ট্রেন চালু করতে গেলে কী কী ব্যবস্থা নিতে হবে তা খতিয়ে দেখতে ইতিমধ্যেই মিটিং করলো শিয়ালদহ ডিভিশন। তবে রেল বা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক থেকে কোনও নির্দেশ আসেনি এখনও জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ আপনার শারীরিক ফিটনেস ঠিক আছে কতটা, বলে দেবে এই Amazon-এর Halo ব্যান্ড, জেনে নিন এর দাম

মাটি খুঁড়তেই বেরিয়ে এল শিব লিঙ্গ, মহাদেবের দর্শনে নেমেছে মানুষের ঢল

Shiv Ling Found in Bankua

একশো দিনের কাজ চলছিল জামকুড়ি এলাকাতে। বেশ কিছু দিন ধরেই এই কাজ চলছিল। তার কারনের মাটি খননের কাজ চলছিল। এইভাবেই ৫ থেকে ৬ ফুট মাটি খননের পর হঠাৎ দেখা যায় এই কালো পাথরের। আরও একটু খননের পর স্পষ্ট বোঝা যায় এটি শিবলিঙ্গ।

তারপরই আসেপাশের গ্রামে খবরটা ছড়িয়ে পড়তেই মানুষের ঢল নামতে শুরু করে। একে একে মানুষ ছুটে আশে মহাদেবের দর্শন করতে। জানাগেছে, প্রাপ্ত শিবলিঙ্গটি প্রায় ৩ ফুট লম্বা ও প্রায় ১ ফুট চড়া।

আরও পড়ুনঃ রামমন্দির তৈরী হবে ৪২ মাসের মধ্যেই, জানেন মন্দির তৈরীতে কত টাকা খরচ হবে!

মহাদেবের আগমনে গ্রামের মানুষদের ধারনা তাদেরকে করোনার হাত থেকে বাঁচাতে পারে এই শিবলিঙ্গ। তাই সেখানের পরিস্থিতি শুনে মহকুমাশাসক অনুপ কুমার দত্ত, দায়িত্ব নিয়ে বিষয়টা দেখছেন। তিনি রাজ্য সরকারের পুরাতাত্মিক বিভাগকে খবর করেছেন। তবে এখনই বলা যাবে না এই লিঙ্গ কত বছর পুরানো ও কোন রাজার সময়কালে এই লিঙ্গ স্থাপন করা হয়েছিল। তার সাথে এই স্থানে কোনো মন্দির ছিল কি না সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে সম্পুর্ন পর্যবেক্ষন করার পর।

আরও পড়ুনঃ রাম মন্দির ওড়ানোর ছক, ধৃত আইসিস জঙ্গি ইউসুফ খান

শিলিগুড়িতে আটোক ২ কোটি টাকার সোনা সহ ২ জন

gold

এ দিন শিলিগুড়িতে আটোক করা হয়েছে ২ সন্দেহ জনক ব্যক্তিকে। যাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ১.৯৯ কিলোগ্রামের বিদেশী সোনার বার। ভারতে যার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা। রবিবার দিন Directorate of Revenue Intelligence গোপন সূত্রে খবর পেয়ে একেবারে হাতে নাতে ধরে ফেলে ওই দুই জনকে।

আরও পড়ুনঃ করোনা অতিমারীর শেষ কবে, জানালো হু

জানা গেছে, আটোক হওয়া দুই ব্যক্তিদের নাম মঙ্গি লাল ও যোগেশ সোনি। এই দুই জনের বাড়ি রাজস্থানে। এরা দিল্লি থেকে এই সোনা পাচার করে এনেছিল বলে জানাগেছে।

বিস্তারিত জানার জন্য এই দুই ব্যক্তিদের সঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে DRI।

আরও পড়ুনঃ রাম মন্দির ওড়ানোর ছক, ধৃত আইসিস জঙ্গি ইউসুফ খান

আবারও করোনায় মৃত্যু এক তৃণমূল বিধায়কের

died

এগরাঃ এবার ক্রোনায় প্রাণ হারালেন পূর্ব মেদিনীপুরের এগরার তৃণমূল বিধায়ক সমরেশ দাস। তিনি স্লটলেকের আমরি কোভিড হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। আজ ভোরে তাঁর মৃত্যু হয়। এর আগেও করোনায় মৃত্যু হয় দক্ষিণ ২৪ পরগনার ফলতার তৃণমূল বিধায়ক কালীঘাটের বাসিন্দা তমোনাশ ঘোষের। এবার ৭৬ বছরের সমরেশ দাসের মৃত্যু হয় করোনায়।

আরও পড়ুনঃ দক্ষিণবঙ্গে আবার কবে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস, দেখে নিন

তিনি ১৮ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হন ও তারপর তাঁকে পাশকুড়ার বড়মা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর তাঁর শারিরীক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ২৪ জুলাই তাঁকে সল্টলেকের আমরি কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। আজ ভোর সোয়া চারটে নাগাদ মৃত্যু হয় তাঁর। সমরেশ দাস এগরা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে পরপর পাঁচবার জয়ী হন। প্রথমে তিনি ছিলেন বাম বিধায়ক, পরে তৃণমূলে যোগ দেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ আগে ছিল বাঘ, এখন বেড়াল, করোনা সম্পর্কে কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

দক্ষিণবঙ্গে আবার কবে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস, দেখে নিন

rain in kolkata

আবারও বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টির সম্ভাবনা। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশার উপর নিম্নচাপটি সরে উত্তর ওড়িশা ও ঝাড়খণ্ডের উপরে অবস্থান করেছে। এর প্রভাবে পশ্চিমের দু-একটি জেলায় আজ ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস।

উত্তরবঙ্গের ৬ জেলায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। বুধবার উত্তর বঙ্গোপসাগরে তৈরী হচ্ছে আরও একটি নিম্নচাপ। এর জন্যই মঙ্গলবার থেকেই দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়ার পরিবর্তন হবে। প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা বুধবার দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে।

আরও পড়ুনঃ আবার উত্তাল শ্রীনগর, জঙ্গি হামলায় মৃত ২

দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমের জেলাগুলিতে আগামী ২৪ ঘন্টায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমান, ঝাড়গ্রামে। বাকি জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। দু’এক জায়গায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা বৃষ্টির পূর্বাভাস।

মঙ্গলবার থেকে আবার বৃষ্টির পূর্বাভাস দক্ষিণবঙ্গের নদিয়া, পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনাতে।

আরও পড়ুনঃ আগে ছিল বাঘ, এখন বেড়াল, করোনা সম্পর্কে কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

এবার BDO, SDO-দের কাজের মুল্যায়ন করবেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী

in which zone in your house

কলকাতাঃ আমফানে ক্ষতিগ্রস্থ জেলাগুলির বিভিন্ন জায়গা থেকে ত্রাণ বিলি নিয়ে দুর্নীতির বিভিন্ন অভিযোগ এসেছে নবান্নে। আমফানের ত্রাণ বিলি নিয়ে ক্ষুদ্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই এবার তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, জেলা প্রশাসনের সব স্তরের কর্তা বিডিও, এসডিও ও এডিএম-দের কাজের বার্ষিক মুল্যায়ন তিনি নিজেই করবেন।

আমফানের ক্ষতিগ্রস্থ জেলাগুলিতে ত্রাণ বিলির সময় বেশ কিছু বিডিও, এসডিও-র বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। আমফানে ক্ষতিপূরণের জন্য নতুন করে আবেদনপত্র জমা দিতে বলেন মুখ্যমন্ত্রী। নতুন আবেদনপত্র জমা পড়েছে প্রায় ৬ লক্ষ।

আরও পড়ুনঃ ‘স্বচ্ছ কর ব্যবস্থা’ কর ব্যবস্থার সংস্কারে বড় ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

নবান্ন সুত্রে খবর যে, বেশ কয়েকটি জেলার বিডিও, এসডিও ও এডিএম-দের কাজে অত্যন্ত বিরক্ত নবান্ন। স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। সেইজন্য এবার তিনি নিজেই বিডিও, এসডিও-দের কাজের তদারকি করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর নজরদারিতে থাকবেন ৩৪৪ জন বিডিও, ৬৬ জন এসডিও ও ৬৯ জন এডিএম। তিনি নিজে এদের কাজ মনিটরিং করবেন। নবান্নে আসবে প্রতিদিনের কাজের রিপোর্ট। এরপর কাজের মুল্যায়ন করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুনঃ শ্রীদেবীর মৃত্যুর ২ বছর পর সিবিআই তদন্তের দাবি নেটবাসীদের