ঘরে বসে কাজ করে বাড়ছে পেটের মেদ, জেনে নিন সহজ সমাধান

belly fat

এই করনার জেরে প্রায় ঘরেই বসেই কাজ, দীর্ঘ সময় চেয়ারে বসে সময় কাটছে। আর তার জন্য ক্রমাগত বেড়েই চলেছে ভুঁড়ি। কাজের চাপে সময় নেই এক্সারসাইজ করারও। তাহলে কীভাবে কমবে ওজোন ও পেটের মেদ!

নিয়ম মেনে গোলমরিচ খেলে কমবে শরীরের অতিরিক্ত ওজোন। আবার ঘাম না ঝরিয়েই, কোনো পরিশ্রম না করেই।

আমরা খাবারের স্বাদ বাড়াতে গোলমরিচ ব্যবহার করি। কিন্তু ওজোন কমিয়ে একেবারে ঝরঝরে শরীর পেতেও ভীষণ সাহায্য করবে এই গোলমরিচ। গোলমরিচ শরীরে মেটাবলিজম রেট বাড়িয়ে মেদ ঝরাতে সাহায্য করে। স্যালাডের সাথে গোলমরিচ ছড়িয়ে দিয়ে খান এতে স্বাদ ভালো হবে ও আপনার পেটের মেদও কমবে।

আরও পড়ুনঃ পুজো আগেই মেদ ঝরান, রইলো তার ডায়েট

দুটো গোটা গোলমরিচ সকালে চিবিয়ে খেলে তা ফল দেবে সারাদিন। রান্নায় ফোড়ন হিসাবেও গোলমরিচ দিন। গ্রিন টি-র সাথেও বেশ ভালো লাগবে এই গোলমরিচ, এতে ওজোনও কমবে।

তাহলে আর দেরি না করে আজই এই উপাদানটি কাজে লাগিয়ে বিনা পরিশ্রমে আপনার অতিরিক্ত ওজোন ঝরিয়ে সহজেই সুন্দর ও সুস্থ্য শরীর পান।

আরও পড়ুনঃ শুধুমাত্র গরম জলেই ১২ কেজি পর্যন্তও ওজোন কমান!

পুজো আগেই মেদ ঝরান, রইলো তার ডায়েট

reduce body fat

এবারে পুজো হোক অন্যরকম। যতই থাক করোনা, এবারে পুজোতে আপনাকে সুন্দর ও চনমনে রাখার জন্য জেনে নিন কীভাবে বাড়তি মেদ ঝরাবেন পুজোর আগেই। রইলো আপনার জন্য ডায়েট প্ল্যান।

আপনাকে ৭০ শতাংশ ডায়েট ও ৩০ শতাংশ এক্সারসাইজ রাখতে হবে। সকালে ঘুম থেকে উঠে এক্সারসাইজ করে খেতে হবে লেবু জল। তার আধ ঘন্টা পরে এক কাপ চা। চা খাবেন চিনি ছাড়া।

আরও পড়ুনঃ কমবে মেদ ও সাথে জটিল রোগ, রোজ খান এই জিনিসটি

ব্রেকফাস্টে রাখতে হবে দুধ কর্নফ্লেক্স, ডালিয়া, ওটস জাতীয় খাবার। লাঞ্চ করবেন স্যালাডে। খাওয়া চলতে পারে পালা করে, স্যালাড, ওটস স্যালাড বা ফ্রুট স্যালাড। অভ্যেস থাকলে ভাত খেটে পারেন সামান্য। শাকসবজির পরিমাণ বাড়াতে হবে।

বিকেলের টিফিন করুন ছোলা, পেঁয়াজ, টমেটো দিয়ে মুড়ি খান বা ছানাও খেতে পারেন। ডিনার করুন গরম স্যুপ দিয়ে। আপনার যদি মনে হয় খিদে থাকছে রায়তা খেতেও পারেন এর সঙ্গে।

আরও পড়ুনঃ ভুঁড়ি বাড়ছে? তুলসির টোটকায় মেদ ঝরিয়ে ফেলুন ঝটপট

কমবে মেদ ও সাথে জটিল রোগ, রোজ খান এই জিনিসটি

eat-this-food-every-day-to-reduce-body-fat

রোজ ডায়েটের তালিকায় রাখুন জিরে ভেজানো জল। রোজ রাতে জিরে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে ঘুম থেকে উঠে জলটা খেয়ে নিন। এতে ত্বক ভালো থাকবে।

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, প্রতিদিন সকালে জিরে ভেজানো জল খেলে শরীরে ডায়াজেস্টিভ এনাজাইমের উৎপাদন বেড়ে যায়, এর সঙ্গে লিভারে উপস্থিত ক্ষতিকর টক্সিক উপাদানেরাও বেরিয়ে যায় শরীর থেকে। এর ফলে লিভারের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

আরও পড়ুনঃ মেদহীন পেট পেতে চাইলে সকাল ৮টার আগে খেতে হবে এই জিনিসটা

জিরে তে রয়েছে বেশ কিছু উপকারি উপাদান যা শরীরে প্রবেশ করার পর ফুসফুসের কর্মক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়। এর ফলে নানারকম রেসপিরেটরি ডিজিজে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমে।

রোজ জিরে ভেজানো জল খেলে হজম শক্তি বাড়ে। জিরেতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। এই উপাদানটি শরীরে প্রবেশ করার পর মেটাবলিজম রেট বাড়িয়ে দেয়। তার ফলে খাবার খুব সুন্দরভাবে হজম হতে শুরু করে, যার ফলে ওজোন বাড়ার কোনও সম্ভাবনা থাকেনা।

আরও পড়ুনঃ বেলিফ্যাট লজ্জায় ফেলছে? কোন খাবারে বাড়ছে আপনার বেলিফ্যাট জেনে নিন

পেঁয়াজের রস নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে, জেনে নিন ব্যবহারের উপায়

benefits of onion juice

প্রায় সকলেই জানেন পেঁয়াজের রস আমাদের চুলের জন্য খুবই উপকারী। পেঁয়াজের রস আমাদের নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে, চুলপড়া কমায় এবং চুলের গোড়া শক্ত করে। কিন্তু অনেকেই জানেন না যে কিভাবে এই পেঁয়াজের রস মাথায় ব্যবহার করবেন। দেখে নিন কীভাবে মাথায় পেঁয়াজের রস ব্যবহার করেবন!

প্রথমে পেঁয়াজ কেটে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর পেঁয়াজের রস বের করে মাথায় লাগান ও ৩০ থেকে ৪০ মিনিট রেখে দিন। এরপর মাইল্ড শ্যম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

পেঁয়াজের রসের সঙ্গে হালকা গরম জল মিশিয়ে মাথায় লাগান। এরপর এরপর ৩০ থেকে ৪০ মিনিট রেখে দিন ও তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এবং ১ দিন পর শ্যম্পু করে নিন।

আরও পড়ুনঃ প্রাকৃতিক উপায়ে বন্ধ হবে অতিরিক্ত চুল পড়ার সমস্যা! জানুন বিস্তারিত

পেঁয়াজের রসের সঙ্গে নারকেল তেল ও কয়েক ফোটা এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিন ও মাথার ত্বকে ভালো করে লাগিয়ে নিন। ১ ঘন্টা পর শ্যাম্পু করে নিন।

পেঁয়াজের রসের সঙ্গে দুই চা চামচ দই ও এক চা চামচ মধু মিশিয়ে মাথার ত্বকে ভালো করে লাগান। এরপর ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত একদিন মাথায় লাগান এই প্যাক।

পেঁয়াজ বেটে নিয়ে এতে অলিভ অয়েল মিশিয়ে মাথার ত্বকে লাগান। এরপর ২ ঘন্টা রেখে দিন। এবার শ্যম্পু করে ধুয়ে নিন ভালো করে।

আরও পড়ুনঃ কীভাবে আপনার দাঁতকে করবেন ঝকঝকে সাদা মুক্তোর মত! দেখে নিন

মেদহীন পেট পেতে চাইলে সকাল ৮টার আগে খেতে হবে এই জিনিসটা

reduce belly fat

অনেক মানুষেরই স্বপ্ন মেদহীন পেট, তবে মেদহীন পেট পাওয়ার জন্য যে পরিশ্রম করতে হবে, সেটা অনেকেরই পক্ষে সম্ভব নয় করা। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমন একটা জিনিস আছে যা সকাল ৮ টার আগে খালি পেটে খেতে হবে। এতে আপনার পেটের মেদ ঝরে যাবে।

আরও পড়ুনঃ রোজ মুড়ি খেলে কী কী উপকার হয় জেনে নিন

বিশেষজ্ঞদের মতে, সারাদিন সব খাবারের মধ্যে ব্রেকফাস্ট সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে এমন একটি খাবার আছে, যেটা সকাল ৮ টার আগে খেলে ঝরে যাবে আপনার পেটের মেদ। সকাল ৮ টার আগে খেতে হবে ২টো ডিম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে, ডিম রান্না করুন আধ চামচ অলিভ অয়েল দিয়ে। এতে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে, ভিটামিন ডি, প্রোটিন ও বায়োটিন।

অনেকেই ভাবতে পারেন ডীমের কুসুম খাবেন কি খাবেন না! ২টো ডিমের কুসুম কোনোও ক্ষতি করবেনা শরীরে। তাই খেতে পারেন কোনো চিন্তা ছাড়াই। তবে আপনার যদি কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকে অবশ্যই পরামর্শ নিন চিকিৎসকের।

আরও পড়ুনঃ বেলিফ্যাট লজ্জায় ফেলছে? কোন খাবারে বাড়ছে আপনার বেলিফ্যাট জেনে নিন

ভুঁড়ি বাড়ছে? তুলসির টোটকায় মেদ ঝরিয়ে ফেলুন ঝটপট

Reduce belly fat

প্রায় আমরা সবাই জানি তুলসি পাতার একাধিক ঔষধি গুনাগুন রয়েছে ও রোগ নিরাময়ের ক্ষমতাও রয়েছে। ছোটখাটো নানা রোগের ওষুধ হিসেবে তুলসি পাতার ব্যবহার হয়ে আসছে। তবে তুলসি পাতার টোটকা পেটের বাড়তি মেদ ঝরিয়ে ফেলতে সাহায্য করে। কষ্টকর শরীরচর্চার বদলে পেটের বাড়তি মেদ কমাতে কাজে লাগিয়ে দেখুন এই তুলসি পাতার টোটকা।

আরও পড়ুনঃ বেলিফ্যাট লজ্জায় ফেলছে? কোন খাবারে বাড়ছে আপনার বেলিফ্যাট জেনে নিন

সর্দি-কাশি তে তো বটেই ও পেটের বাড়তি মেদ ঝটপট ঝরিয়ে ফেলতে অত্যন্ত কার্যকরী তুলসি চা। জেনে নিন তুলসি চা বানানোর উপায়।

প্রথমে একটি পাত্র নিন ও ২ কাপ জল দিয়ে মাঝারি আঁচে বসিয়ে দিন। এরপর জল ফুটে উঠলে তাতে ৩-৪টি তুলসি পাতা দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিন। এরপর পাত্রের জল কিছুটা শুকিয়ে গিয়ে ১ কাপের মতো হয়ে গেলে নামিয়ে নিন। এবার এর সঙ্গে হাফ চামচ মধু দিয়ে মিশিয়ে খেয়ে নিন। এই তুলসি চা প্রতিদিন অন্তত ২ বার করে খেতে হবে। দ্রুত ঝরবে আপনার পেটের মেদ ও শরীর থাকবে চনমনে।

আরও পড়ুনঃ ওজন কমানোর সহজ পথের নাম গাজর

রোজ মুড়ি খেলে কী কী উপকার হয় জেনে নিন

health

এটা প্রায় সকলেই জানেন মুড়ি অ্যাসিড রোধ করে। যাদের শরীরে হজমের সমস্যা আছে, যাদের অ্যাসিড হয় খুব তাদের জন্য মুড়ি খুবই উপকারী। তাই নিয়মিত মুড়ি খেলে অ্যাসিড কমবে।

শুকনো বা ভেজা মুড়ি খেলে পেটের সমস্যায় তাৎক্ষণিক উপকার পাওয়া যায়। মুড়িতে ভিটামিন বি ও প্রচুর পরিমাণে মিনারেল থাকে, যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এর পাশাপাশি হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

চিবিয়ে খেতে হয় মুড়ি এর ফলে দাঁত ও মাড়ির ব্যায়াম হয়। নিয়মিত মুড়ি খেলে দাঁত ও মাড়ি ভালো থাকে। এর কারণ, মুড়িতে থাকে ক্যালসিয়াম, ফাইবার ও আয়রন। যা হাড় শক্ত করে। এছাড়াও মুড়িতে আছে শর্করা, যা রোজকার কাজে শক্তি যোগায়।

আরও পড়ুনঃ বেলিফ্যাট লজ্জায় ফেলছে? কোন খাবারে বাড়ছে আপনার বেলিফ্যাট জেনে নিন

কম ক্যালোরির খাবার খাবেন, আবার তাতে পেটও ভরবে,যদি আপনার এমনই ইচ্ছা থাকে তাহলে মুড়ি খেতে পারেন। সারাদিন বাড়িতে থাকার সময় বা অফিসে যখনই হাল্কা খিদে পাবে, তখন মুড়ি খেয়ে নিলে খিদেও মিটবে আর ক্ষতিও হবেনা।

যাদের পেটের সমস্যা আছে মুড়ি তাদের জন্য বিশেষ উপকারী। এছাড়াও মুড়িতে সোডিয়ামের পরিমাণ কম থাকে। যাঁরা উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভোগেন তাঁরা মুড়ি খেতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ শুধুমাত্র গরম জলেই ১২ কেজি পর্যন্তও ওজোন কমান!

বেলিফ্যাট লজ্জায় ফেলছে? কোন খাবারে বাড়ছে আপনার বেলিফ্যাট জেনে নিন

Belly fat

বাঙালিরা স্ন্যাক্স প্রিয়। বাঙালিদের মুখরোচক স্ন্যক্সের প্রতি আজন্ম ভালোবাসা। সেই ভালোবাসাই আপনাকে ঘাতক হয়ে ধরা দিচ্ছে। বারবার ফাস্ট ফুড খাওয়া অন্যতম কারণ বেলিফ্যাটের।

অনেকেই তেষ্টা পেলে সফট ডিঙ্কস পান করেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই সফট ডিঙ্কস ক্ষতি করে শরীরে। অতিরিক্ত ক্যালোরি মেদ বাড়িয়ে দেয় আমাদের।

কর্নেল ইউনিভার্সিটির বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, বেশি খাওয়ার প্রবনতা বাড়িয়ে দেয় নেগেটিভ ইমোশান।

একটি জায়গায় দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে বেলি ফ্যাট বাড়ে। তাই যারা বাড়িতে কাজ করেন তাদের এক থেকে দেড় ঘন্টা অন্তর অন্তর ওঠার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুনঃ পেঁপে খেয়ে কীভাবে ওজোন কমাবেন জানুন

এর সমাধান হিসাবে নিয়মিত এক্সারসাইজ করার কথা বলছেন পুষ্টিবিদরা। ফুড হ্যাবিট বদলাতে হবে। খেতে হবে টক দই। এতে থাকে গুড ব্যাক্টেরিয়া যা হজম শক্তি ঠিক রাখে। এছাড়াও স্ন্যাক্সের বদলে আমন্ড বা স্যালাড খাওয়ার কথা বলছেন পুষ্টিবিদরা।

আরও পড়ুনঃ ওজন কমানোর সহজ পথের নাম গাজর

শুধুমাত্র গরম জলেই ১২ কেজি পর্যন্তও ওজোন কমান!

weight loss tips

শুধুমাত্র জলেই যে ওজোন কমানো যায় এটাও প্রমানিত। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যখনই জল তেষ্টা পাবে উষ্ণ গরম জল পান করলে ১২ কেজি পর্যন্ত ওজোন কমে যায়, এক বছরেরও কম সময়ের মধ্যেই। জলে ওজোন কমাতে গেলে যখনই তেষ্টা পাবে উষ্ণ গরম জল পান করুন।

আমাদের শরীরে ঠান্ডা ও গরম দুই জলের প্রভাব আলাদা। গরমে অনেকেই ফ্রিজের ঠান্ডা জল খেয়ে নেন। এটা অত্যন্ত ক্ষতিকর। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা বলছেন যে, ঠান্ডা জল আসলে হজমশক্তি কমায়। এর ফলে বদহজমের জেরে শরীরে মেদ জমতে থাকে দ্রুত। তাই হয় স্বাভাবিক তাপমাত্রার জল খান ও ওজোন কমাতে চাইলে উষ্ণ গরম জল পান করুন।

আরও পড়ুনঃ হাঁটু ও কনুইয়ে কালচে দাগ? দূর করুন ঘরোয়া পদ্ধতিতে

গবেষণায় দেখা গেছে, খাওয়ার সময় ফ্রিজের ঠান্ডা জল খেলে খাবারে থাকা চর্বি পেটে গিয়ে কঠিন আকার ধারণ করে। তার জন্য চর্বি জমতে থাকে। উষ্ণ গরম জল খেলে শরীরে সবকিছু নিয়ন্ত্রণে থাকে। কিডনি ভালো থাকে এর জন্য রক্তে অক্সিজেনের মত্রা ঠিক থাকে।

পরিপাক হরমোনগুলিকে উদ্দীপিত করে গরম জল। ফলে খাদ্যরস শোষণে সাহায্য করে গরম জল। এই কারনে রেস্তরাঁয় খাবার পর চা-কফি অফার করা হয়।

আরও পড়ুনঃ নিমপাতায় আছে এক চমৎকার ঔষধিগুন, জেনে নিন এর সঠিক ব্যবহার

হাঁটু ও কনুইয়ে কালচে দাগ? দূর করুন ঘরোয়া পদ্ধতিতে

dark spot

আমরা প্রায় সকলেই নিজেদের মুখের যত্ন নিয়েই ব্যস্ত থাকি। আমাদের কনুইয়ের কালচে দাগ নিয়ে আমরা প্রায় কেউই মাথা ঘামাই না। কিন্তু কনুইয়ের এই কালচে দাগ বড়ই বেমানান। এই দাগ সহজে যেতেও চায়না। তবে কয়েকটি ঘরে তৈরি প্যাক আছে যা এই কালচে দাগ সহজেই দূর করতে পারবে। এই কালচে দাগ দূর করার কিছু উপায় রইলো আপনাদের জন্য।

১ চামচ চিনি জলে গুলে রস করে নিন। এবার ১ টি পাতি লেবু নিন ও সমান দু ভাগ করে কেটে ফেলুন। অর্ধেক পাতিলেবুর মধ্যে চিনির রস দিয়ে কনুইয়ে ১০ মিনিট ভালো করে ঘোষুন, ও তারপর ধুয়ে নিন। এভাবে সপ্তাহে ২-৩ দিন করুন ফল পাবেন। এই পদ্ধতিতে ঘাড়, পিঠ ও হাঁটুর কালচে দাগও দূর করা যাবে।

১ চামচ টকদই, ১ চামচ বেসন, ১ চামচ পাতিলেবুর রস ও ১ চামচ চিনি এই সব উপকরণ একটি পাত্রে নিন ও ভালো করে মেশান। এরপর কনুইয়ে দিয়ে ১০ মিনিট মালিশ করুন। তারপর পাঁচ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন ভালো করে। সপ্তাহে ২ দিন এই প্যাক লাগান, দ্রুত ফল পাবেন।

আরও পড়ুনঃ সর্দি-কাশি ও শরীরের বাড়তি মেদ কমাতে খান কাঁচা হলুদ, দেখে নিন এটি খাবার উপায়

১ চামচ চিনি ও ১ চামচ অলিভ অয়েল নিন ও ভালো করে মেশান। এরপর কনুইয়ে লাগিয়ে ১০ মিনিট ভালো ভাবে মালিশ করুন। এরপর ৫ মিনিট রেখে ধুয়ে নিন। দ্রুত ফল পাবেন। এই প্যাক স্ক্রাবিং করার জন্য হাত ও পায়ের যেকোনো অংশেই ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে উপাদানগুলির পরিমাণ বাড়াতে হবে।

আরও পড়ুনঃ ত্বককে বয়স্কভাব থেকে বাঁচাতে, এড়িয়ে চলুন এইসব খাবার