টাকার অভাবে সুপারকার ড্রাইভার হয়ে উঠলেন নীল ছবির জনপ্রিয় অভিনেত্রী

Renee Gracie

অস্ট্রেলিয়ার সুপারকার ড্রাইভার ছিলেন রিনি গ্রেসি। তিনি এক সময় নাম লিখিয়ে ছিলেন নীল ছবির জগতে। তারপর থেকেই আস্তে আস্তে মানুষের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। মানুষ জানতে পারে তার জীবনের অনেক অজানা কথা।

তার জীবনের অনেক আজানা কথার মধ্যেই উঠে আসে তার নীল ছবির জগতে পা রাখার গল্প। তাতে তিনি জানিয়েছিলেন, জীবনের এক সময় তিনি খুবই আর্থিক সংকটের মধ্যে দিয়ে তাঁর জীবন অতিবাহিত হচ্ছিল। সেই সময় তার কাছে কোনো আর কোনো রাস্তা ছিলনা আর্থিক সংকট দূর করার। তাই তিনি ঠিক করে ছিলেন নিল ছবির দুনিয়াতে পা রাখবেন।

আরও পড়ুনঃ নীল বিকিনি তে উষ্ণতা ছড়ালেন অভিনেত্রী সাক্ষী, ভাইরাল দৃশ্য

তার ওই পদক্ষেপে আজ বিশ্ব জুড়ে তৈরি হয়েছে ফ্যান। মানুষ তাঁকে নিয়ে আলোচনা করে। কেউ ভাল কথা বলে থাকেন, আবার কেউ কটুউক্তি করে থাকেন। তবে তাতে রিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, যে যাই বলুক না কেন তাতে কিছু আসে যায় না তার। তিনি এও জানান, এই পেশা বেছে নেওয়াতে তার পরিবারের দিক থেকে তাঁকে পূর্ন সমর্থন দিয়েছে। এতে তারা খুশি।

আরও পড়ুনঃ কলকাতা থেকে ৬টি শহরে চালু আংশিক উড়ান পরিষেবা, জানুন বিস্তারিত

আবার উত্তাল শ্রীনগর, জঙ্গি হামলায় মৃত ২

Indian Army

শ্রীনগরঃ সন্ত্রাসবাদীরা জম্মু ও কাশ্মীরের নওগন বাইপাসের পুলিশ কনভয় লক্ষ করে এলো পাতারি গুলি চালাতে থাকে। এই হামলায় গুরুতর জখম হন তিন জন পুলিশ। আহত তিন পুলিশকে নিয়ে যাওয়া হয় হালপাতালে এবং চিকিৎসা শুরু হওয়ার পরই মৃত্যু হয় দুই জন পুলিশের। এই হামলাটি যেখানে হয়, সেই এলাকাটি পুরো ঘিরে ফেলা হয়েছে।

কাশ্মীরের আইজি বিজয় কুমার বলেন, এই হামলার পিছনে হাত থাকার প্রবল সম্ভবনা রয়েছে জইশ-ই-মহম্মদের। যদিও এই হামলার দায় কোনো জঙ্গি সংঘটন শিকার করে নি। এখনও খোঁজ চলছে জঙ্গিদের।

আরও পড়ুনঃ আগে ছিল বাঘ, এখন বেড়াল, করোনা সম্পর্কে কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

এই ঘটনার পরে বিস্তারিত বিবরন দিয়ে ট্যুইট করেছে কাশ্মীর জোন পুলিশ। স্বাধিনতা দিবসের আগে দেশজুড়ে থাকে জোরদার নিরাপত্তা। কোনোরকম অশান্তি যাতে না থাকে। তবে স্বাধিনতা দিবসের আগেই এই রকম একটা জঙ্গি হামলা বড় প্রশ্ন তুলে দেয় দেশের নিরাপত্তা ক্ষেত্রে ও এর সঙ্গে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়।

আরও পড়ুনঃ খাদান খুঁড়ে হীরা পেলেন এক মজদুর, দেখুন কী হল তারপর!

আগে ছিল বাঘ, এখন বেড়াল, করোনা সম্পর্কে কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

Covaxin trial

এ বছরের শুরু থেকেই যেন এক ভয়াবহ বিপদের সন্মুখিন হতে হয় সমগ্র মানব প্রজাতিকে। করোনা ভাইরাসের কারনে প্রতি মুহুর্তেই মানুষ মারা গেছে। এই ভাইরাসের কারনে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশই কম বেশি প্রভাবিত হয়েছে। মনে করা হয়, যার শুরুটা হয়েছিল চিনের উহান প্রদেশের একটি বাজার থেকে।

দেশে বর্তমানে যে হারে করোনা ভাইরাস মানুষকে আক্রান্ত করে চলেছে, সেই হারে মানুষের মৃত্যু হচ্ছে না বলে দাবি বিশেষজ্ঞ মহলের। এই মহামারীর শুরুর দিকে যে হারে মানুষের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছিল তা এখন আর হচ্ছে না। বয়স্ক মানুষের করোনা হলেই আগে মারা যেত দু’ই থেকে তিন দিনের মধ্যেই। তবে এখন বয়স্ক মানুষের মধ্যে মৃত্যুর হার কমে গেছে। এমনকি ভেন্টিলেসনেরও দরকার পড়ছে না।

আরও পড়ুনঃ স্ট্রেস কমাতে রোজ খান এই ৫টি খাবার

তাই বিজ্ঞানীরা আশাবাদী এই মহামারী যে গতিতে ছড়িয়ে পড়েছিল সেই গতিতেই আবার চলে যাবে। এখন যে হারে মানুষ আক্রান্ত হয়ে চলেছে সেই হারে মৃত্যু হচ্ছে না আর। তাই ইতালির এক বিক্ষ্যাত সংক্রমক রোগ নিশেষজ্ঞ মেটও বাশেট্টি বলেন, পূর্বে করোনা ছিল জঙ্গলের বাঘ, আর এখন বিড়াল হয়ে গেছে।

ভারতে করোনায় মোট আক্রান্ত ২৪,৬১,১৯০ জন। সুস্থ হয়েছে ১৭,৫১,৫৫৫ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৮,০৪০ জন।

আরও পড়ুনঃ এবার BDO, SDO-দের কাজের মুল্যায়ন করবেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী

শ্রীদেবীর মৃত্যুর ২ বছর পর সিবিআই তদন্তের দাবি নেটবাসীদের

Sredevi's death

২ বছর অতিক্রম হয়ে গেছে শ্রীদেবীর মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু তার মৃত্যু এখনও রহস্যি হয়ে রয়েগিয়েছে। শ্রীদেবীরে মৃত্যু নিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি জানাল নাটবাসীদের একাংশ।

২০১৮ সালে মোহিত মারওয়াড়ের বিয়েতে দুবাই গিয়েছিল শ্রীদেবী ও তার পরিবার। কয়েকদিন সেখানে কাটিয়ে বনি কাপুর তার বোনকে নিয়ে ফিরে আসেন মুম্বাই। শ্রীদেবী থেকে যান দুবাইয়ে। পরে আবার দুবাইয়ে যান বনি কাপুর। সেদিন তিনি নৈশ্যভোজের জন্য শ্রীদেবীকে তৈরি হতে বলে। তারপরই হোটেলের বাথ টাব থেকে উদ্ধার হয় তাঁর দেহ। তাঁকে মৃত বলে জানিয়ে দেয় সেখানের ডাক্তাররা। দুবাই সরকার একে দুর্ঘটনাজনক মৃত্যু আখ্যাদেয়।

নেটবাসীদের একাংশ ও শ্রীদেবীর অনুরাগী-ভক্তদের অনেকে মনে করেন পুরোটাই ধোঁয়াশা এখনও। কীভাবে হোটেলের বাথ টাবে ডুবে মারা গেলেন তিনি! শ্রীদেবীর মৃত্যুর রহস্যের জাল ভেদ করতে নেটবাসীদের একাংশ সিবিআই তদন্তের দাবি তুলেছে।

আরও পড়ুনঃ H-1B নিয়ন্ত্রণ শিথিল করলো ট্রাম্প, আবার আগের চাকরিতে ফেরা যাবে আমেরিকায়

সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু নিয়ে ২ মাস হতে যায় দেশে তোলপাড় চলছে এখনও। তদন্তের ভার দিয়েছে সিবিআই-এর হাতে। শ্রীদেবীর মৃত্যু রহস্য উদ্ঘাটনেও সিবিআই তদন্ত জরুরি বলে মনে করছে নেটবাসীরা।

আরও পড়ুনঃ ঘরের মধ্যে লুকিয়ে বিশাল গোখরো, দেখুন তারপর কি হল

ঘরের মধ্যে লুকিয়ে বিশাল গোখরো, দেখুন তারপর কি হল

King Cobra

#নৈনিতালঃ ঘরের মধ্যেই লুকিয়ে ছিল এক বিশাল আকারের গোখরো। তার তাই দেখে বাড়ির সব লোক বাড়ির বাইরে চলে গিয়েছিল। সেই খবর পৌঁছে যায় বনদফতরের কর্মীদের কাছে। সেই বনকর্মীদের মধ্যেই একজন সম্পুর্ন ঘটনার ভিডিও করে ট্যুইটারে শেয়ার করলেন। সেই অফিসারের নাম আকাশ কুমার বর্মা। সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই ভাইরাল হয় নেটবাসীদের মধ্যে।

এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরাখন্ডের নৈনিতালে। সেখানকার একটি বাড়িতে ঘটনাটি ঘটেছে। গোখরো সাপটি একটি টেবিলের তলাতে আশ্রয় নেয়। তারপরে আশে পাশে জানাজানি হতে মানুষের মধ্যে আতঙ্কের সঞ্চার ঘটে।

বনকর্মীরা সাপটিকে বাইরে আনতেই সাপটিকে দেখার জন্য মানুষের ভিড় জমতে শুরু করে।

আরও পড়ুনঃ আবার রাজ্যে দিন বদল করা হল লকডাউনের

পরে আরও একটি ভিডিও শেয়ার করেন আকাশ কুমার বর্মা। যেখানে সাপটিকে জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। এই সব কর্মের জন্য বহু মানুষের প্রশংসার পাত্র হয়ে ওঠে এই বনকর্মীর দল।

আরও পড়ুনঃ এবার জম্মু কাশ্মীরের পুলিশের ফাঁদে কুখ্যাত লস্কর জঙ্গি আকিব আহমেদ

এবার জম্মু কাশ্মীরের পুলিশের ফাঁদে কুখ্যাত লস্কর জঙ্গি আকিব আহমেদ

Akib Ahmed

এক বড় সাফল্যের মুখ দেখল জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশ। বেশ কিছু দিন ধরে হামলার ছক কষছিল এই কুখ্যাত লস্কর জঙ্গি আকিব আহমেদ। বুধবার পুলিশের ফাঁদে ধরা পড়ে এই আকিব। জানা গিয়েছে, সে ‘জানা’ পরিচিত ছিল ঘনিষ্ঠমহলে।

বুধবার সকালে গোপন সূত্র থেকে খবর আশে যে, হ্যান্ডওয়ারার এই দুষ্কৃতী বন্দিপোরা জেলায় ঘাঁটি বেঁধেছে। খবর পাওয়া মাত্রই জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ ও সিয়ারপিএফ এর নিরাপত্তারক্ষীদের একটি যৌথ বাহিনী সেই এলাকাতে গিয়ে উপস্থিত হয়।

আরও পড়নুঃ ছয় লেনের নতুন উড়ালপুল শহরে

গোটা এলাকাটিকে ৩২ নং রাইফেল, ১৩ নং রাইফেল এবং ৯২ নং ব্যাটেলিয়ানের সিয়ারপিএফ এর বড় দল সম্পুর্ন জায়গাটিকে বলয় করে ঘিরে ফেলে। তার পর আস্তে আস্তে সেই বলয় ছোট করতে শুরু করে। আর তাই শেষ পর্যন্ত এই আকিবের আর পালানোর জায়গা থাকে না। পুলিশের জালে ধরা পড়ে।

আকিবের কাছ থেকে বেশ কিছু বেআইনি অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এখন সে কি ধরনের হামলার ছক কষেছিল? কেনই বা এই কাজ? কারা এই পিছনে রয়েছে তা জানার চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুনঃ আত্মনির্ভর ভারত উদ্যোগে জোর, ১০১ সরঞ্জামে নিষেধাজ্ঞা কেন্দ্রের, ঘোষণা রাজনাথ সিং-এর

গর্ভাবস্থায় অষ্টম মাসে এই খাবারগুলি থেকে দূরে থাকুন

Pregnancy

গর্ভাবস্থায় প্রতিটি মহিলাই চান তাঁর গর্ভে থাকা সন্তানকে ভালো রাখতে, আর তাই হাজার রকম চেষ্টা করে থাকেন।

এই সময় নিজেকে ভালো রাখার সাথে সাথে সন্তানকে ভালো রাখার কথাও ভাবতে হয়। তাই নিজের শারীরিক অবস্থা ভালো রাখার সাথে সাথে সন্তানকে ভালো রাখার উপায় হল সঠিক খাদ্য গ্রহন।

গর্ভাবস্থায় প্রতিটি মহিলাকেই বিশেষভাবে মনোযোগ দিতে হবে খাবারের প্রতি। বিশেষ করে যদি অষ্টম মাসের গর্ভাবস্থা চলতে থাকে।

এই সময় কিছু খাদ্য আছে যেগুলি গ্রহণে উপকার হয়, আবার কিছু খাদ্য আছে যেগুলি গ্রহণে ক্ষতির সম্ভবনাও বৃদ্ধি পায়। তাই ডায়েটের দিকে বিশেষ নজর রাখতে হয়। একটি শিশুর স্বাস্থ্য বিশেষভাবে খাদ্য ও মাতার শারীরিক অবস্থার উপর নির্ভরশীল।

তাই দেখে নিন অষ্টম মাসের গর্ভাবস্থায় কী কী রকম খাবার এড়িয়ে চলবেন।

১। ধূমপান ও মদ্যপানঃ ধূমপান ও মদ্যপান স্বাভাবিক ও সুস্থ মানুষের জন্যও স্বাস্থ্যকর নয়। তবে কিভাবে এক জন গর্ভাবস্থায় থাকা মানুষের উপকারে চালার কোনো সুযোগই নেই। যদি এগুলির উপরে আসক্তি থাকে তবে এখনই ত্যাগ করে ফেলতে হবে।

২। ছাগলের দুধঃ ছাগলের দুধ এড়িয়ে চলুন। কারণ এতে থাকে টক্সোপ্লাজমোসিস। যা একজন গর্ভাবস্থায় থাকা মহিলার কাছে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে।

আরও পড়ুনঃ করোনা আবহে ডায়াবেটিস রোগীরা সুস্থ থাকবেন কী করলে দেখে নিন

৩। তেলেভাজাঃ এই সময় মহিলাদের টক, ঝাল, মিষ্টি খাবার বেশ পছন্দের হয়ে ওঠে। তাতে কোনো ক্ষতি নেই। তবে এই টক, ঝাল, মিষ্টি খাবারের তালিকাতে রয়েছে তেলেভাজা। যা বেশ পছন্দের খাদ্য। তবে এই খাদ্য খাওয়া একেবারেই বান্ধনিয় নয়। কারণ এই ধরনের খাদ্যে হজমের সমস্যা সৃষ্টি করে। যার কারনে গ্যাস্ট্রেইনটেস্টাইনাল সমস্যাও মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে। ফলে শিশুর স্বাস্থের উপড় সরাসরি প্রভাব বিস্তার করে।

৪। কফিঃ গর্ভাবস্থার অষ্টম মাসে এসে ক্যাফেইন যুক্ত পানীয় সম্পুর্ণভাবে এড়িয়ে চলুন। কারণ এই জাতীয় পানীয় শুধা ভাব কমিয়ে দেয়। কফি বেশি পরিমাণে সেবনে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যার আবির্ভাব ঘটাতে পারে।

৫। মাংসের যকৃতঃ গর্ভাবস্থায় থাকার সময় যকৃত খাওয়া থেকে বিরাম থাকুন। সাথে অর্ধেক রান্না হওয়া মাংস খাওয়া থেকে দূরে থাকুন। কারণ এই রকমের খাদ্য শিশুদের টসোপ্লাজমোসিস এবং লিস্টোরিওসিস-এর মতো সমস্যার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়।

তাই এই প্রকারের খাদ্য থেকে দূরে থাকুন, সুস্থ থাকুন, সুখে থাকুন।

আরও পড়ুনঃ মানসিক অবসাদ বা বাড়তি ওজোন, সবকিছু থেকে মুক্তি পেতে খান আমলকী

করোনা আবহে ডায়াবেটিস রোগীরা সুস্থ থাকবেন কী করলে দেখে নিন

Sugar Patient

সারা পৃথিবীতে করোনা যে ভাবে থাবা বসিয়েছে তাতে স্পষ্টভাবে বোঝাই যাচ্ছে যে এই জীবাণু সহজে মানুষের জীবন থেকে যাবে না।

করোনা শুধুমাত্র মানুষের জীবন নিয়ে চলেছে তা নয়, বদলে দিয়েছে মানুষের জীবন ধারা। একে বারে বদলে গেছে নিত্য দিনের জীবন সংগ্রাম। এখন মানুষকে লড়তে হচ্ছে এক অদৃশ্য শক্তির সাথে। যার ক্ষমতা মানুষের থেকে অনেক বেশি।

এর মাঝেও কিছু মানুষ আছেন যারা এখনও পর্যন্ত বিশ্বাস করে উঠতে পারছেন না যে করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ নামের কিছু আছে, আর যার কারণে বহু মানুষ তার প্রিয়জনদের হারিয়ে ফেলেছেন।

এই কোভিড-১৯ বিশেষকরে তাদের কে একেবারেই করুনা করছে না যাদের সুগার, হৃদপিন্ডের ও নানান অসুখে ভুগছেন।

তবে একেবারেই যে কিছু করার নেই তা নয়। কিছু না করার থেকে কিছু অন্তত করাই অনেক কিছু হয়ে থাকে। তাই সেই কথাই ভেবে বেশ কিছু সাধারণ টোটকার কথা উল্লেখ করলাম যা আপনাকে করোনার এই মহামারীর মাঝেও সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে।

১। মাস্ক ব্যবহার। হাত বারে বারে ধোয়া, শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা আপনাকে সুস্থ রাখতে পারে।

২। চেষ্টা করুন প্রয়োজনের অতিরিক্ত সময় বাইরে না কাটিয়ে বাড়িতে থাকতে।

৩। বাড়ির বাইরে গেলেই মাস্ক পড়ুন। মনে রাখবেন বাইরে থেকে বাড়িতে ফিরলেই অন্য কোনো জিনিসে হাত দেওয়ার আগে স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।

৪। যাদের ডায়াবেটিক কিটো – অ্যাসিডোসিস বা ‘DKA’ নামক সমস্যা আছে তাদের মাঝে মাঝে শ্বাসকষ্ট দেখা যায়। এই সমস্যাকে করোনার সাথে এক করে না দিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

আরও পড়ুনঃ পেঁয়াজের সাথে হাজির আর এক বিপদ! হুহু করে ছড়াচ্ছে নতুন এই সংক্রমন

৫। ধূমপান করা যাবে না। সাথে অন্য কোনও নেশা জাতীয় দ্রব্য যেমন মদ্যপান একেবারে বন্ধ রাখুন। এতে রোগের প্রকোপ পড়তে পারে।

৬। পর্যাপ্ত পরিমাণে জল পান করুন।

৭। সকালে ও সন্ধ্যাতে নিয়মিত শরীর চর্চা করুন। তবে একমাত্র ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে নেবেন।

৮। বাড়িতে যদি কোনো অসুস্থ ব্যক্তি থাকে তার থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন।

যদি কোভিডের লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে সাথে সাথে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। রোগ চেপে রাখবেন না, আর অবহেলাও করবেন না।

সঠিক সময়ে রোগের চিকিৎসা হওয়া খুবই গুরুত্বপুর্ন। তা নাহলে বিপদ বাড়তে পারে।

আরও পড়ুনঃ নিমপাতায় আছে এক চমৎকার ঔষধিগুন, জেনে নিন এর সঠিক ব্যবহার

Breaking: কোভিড-১৯ সেন্টারে ভয়াবহ আগুন, মৃত প্রায় ৭

fire breaks out at covid 19 center

রবিবার সকালে অন্ধ্রপ্রদেশের বিজয়ওয়াড়ার একটি হোটেলে আগুন লাগে। এই আগুনকে কেন্দ্র করে সেখানে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে হোটেল স্বর্ণ প্যালেসে।

এই হোটেলটিকে বেশ কিছু দিন আগে কোভিড সেন্টার করা হয়েছিল। কারণ অনেক মানুষ এই হোটেলে করোনাতে আক্রান্ত হয়েছিল। আগুন লাগার ফলে ৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যাচ্ছে। উদ্ধার কার্জে ৩০ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। সূত্রের খবর, উদ্ধার করা ব্যক্তিদের নিকটবর্তী একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আর পড়ুনঃ পেঁয়াজের সাথে হাজির আর এক বিপদ! হুহু করে ছড়াচ্ছে নতুন এই সংক্রমন

আগুন লাগার করনে সেখানে বহু মানুষ আটকে পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। এক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এই হোটেলটিকে ভাড়া করে কোভিড সেন্টার করে ছিল। তার কারনেই এখানে বহু মানুষের চিকিৎসা চলছিল।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী টুইট করে শোক প্রকাশ করেন। তিনি মানুষের সুস্থ কামনা করেন।

আরও পড়ুনঃ দুঃসংবাদ বলিউডে! শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি সঞ্জয় দত্ত

পেঁয়াজের সাথে হাজির আর এক বিপদ! হুহু করে ছড়াচ্ছে নতুন এই সংক্রমন

onion

বিশ্ববাসীর কাছে এখন সব থেকে বড় বিপদ করোনা। তার মাঝেই হাজির আর এক ভয়ানক জীবাণু। যার কারনে প্রায় ৬৪০ জন মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। জানা যাচ্ছে, এই জীবাণুর নাম সালমোনেল্লা। যার কারনে প্রায় ৮৫ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সালমোনেল্লা জীবাণু সংক্রমণের মূল উপসর্গ ডায়েরিয়া। মানব দেহে প্রবেশের ৫ থেকে ৬ দিনের মাথায় এই রোগের উপসর্গ দেখা দেয়। বিশেষকরে ৫ থেকে ৬৫ বছর বয়সী মানুষের এই জীবাণু আক্রমনের প্রবনতা বেশি।

আরও পড়ুনঃ জারী কমলা সতর্কতা, প্রবল বৃষ্টির সম্ভবনা দফায় দফায়, জেনে নিন আপডেট

আমেরিকার ৪৩ টি প্রদেশে এই জীবাণু ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ছড়িয়ে পড়ার মাধ্যম হল পেঁয়াজ। পেঁয়াজ থেকেই নাকি ছড়িয়ে গেছে এই ভায়ানক জীবাণু।

এতি মধ্যেই সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ফলে পেঁয়াজ খাওয়া যাবে না, বিক্রি করা যাবে না, আর রান্নাতেও দেওয়া যাবে না। শুধু তাই না, এই সতর্কতা জারি হয়েছে, লাল, হ্লুদ, সাদা পেঁয়াজে।

আরও পড়ুনঃ শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে অবশ্যই খান খেজুর