দিনের শেষে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়ালো ৭,৫২৯

coronavirus

ভারতের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে বোঝাই যাচ্ছে যে লকডাউন তুলে নেওয়াটা খুব একটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। কিছু দিনে আগেই ভারতের করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটার ফলে বহু দেশ ভারতের থেকে আগে ছিল। বর্তমানে আমেরিকার নাম প্রথমে আসে এই ব্যপারে। আর তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে স্পেন।

যে হারে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে তালিকার প্রথমে যেতে ভারতের বেশি দিন সময় লাগবেনা। আক্রান্তের তৃতীয় ধাপে পা দিতে চলেছে ভারত। আজ দিনের শেষে ভারতে করোনাতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭,৫২৯ জন। এই সংখ্যার মধ্যে ৬৫৩ জন মানুষ সুস্থ্য ভাবে নিজের বাড়ি ফিরে গেছে, আর ২৪২ জন মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। এই সংখ্যাটা খুব একটা ভালো ইঙ্গিন দিচ্ছে না ভারতের মানুষকে।

আমাদের রাজ্যে সংখ্যাটা ১২৬ জনে দাঁড়িয়েছে। তার মধ্যে ১৬ জন সুস্থ্য ও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী এই লকডাউনের সময় বৃদ্ধি করে এই মাসের শেষ পর্যন্ত করে দিল।

লিভারপুলের কেনি ডলগ্লিস করোনায় আক্রান্ত

corona positive footballer

লিভারপুলের বর্তমান ম্যানেজার কেনি ডলগ্লিস কিছু দিন থেকেই করোনা ভাইরাসের কিছু লক্ষণ দেখা যাচ্ছিল। তাই টেস্ট করাতেই করোনার পজিটিভ রিপোর্ট ধরা পড়লো। এমনিতেই কিছু দিন ধরে তাঁর শারীরিক অবস্থা খুব একটা ভালো ছিল না। তার মাঝেই এল আবার করোনা।

রিপোর্ট আশা মাত্রই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গেছে। ৬৯ বছর বয়সী এই কেনির শরীর এখনও পর্যন্ত আয়ত্তের মধ্যেই আছে।

কেনি হলেন এক সময়ের বেশ জনপ্রিয় ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি ৩ বার ইংলিশ লিগ জিতে ছিলেন ও ৩ বার ইউরোপিয়ান কাপও জিতে ছিলেন।

এবার বাচ্চাদের মাঝে খেলনা বিতরন করলো কলকাতা পুলিশ

Kolkata Traffic Police

করোনা ভাইরাসের জেরে লকডাউন ডাকা থেকেই কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ বেশ শক্ত হাতে মানুষকে করোনার হাত থেকে বাঁচানোর প্রচেষ্টা করে চলেছে। বেশ সক্রিয় ভুমিকা পালন করে চলেছে কলকাতা ট্রাফিক কুলিশ। কিছু দিন আগেই আমরা দেখেছি তারা তারা বিভিন্ন রাস্তায় গান গেয়ে মানুষকে সাবধান করছে। আবার তার কিছু দিন পর দেখা গেল ফুটপাতে পড়ে থাকা মানুষের মুখে অন্ন তুলে ধরলো এই কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ

এই বারের ছবিটা হয়ে গেছে কিছুটা আলাগ। লকডাউনের ফলে সবার মন খারাপ হচ্ছে। আর সব থেকে বেশি সমস্যা পরিবারের খুদে ব্যাক্তিদের। আর তাদের কথা ভেবে কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ গরিব পরিবারের শিশুদের হাতে তুলি দিল বেশ কিছু খেলার জিনিস। যেমন ছবি আঁকার জন্য রং পেনশিল, ড্রইং বুক, হাতের লেখা করার জন্য খাতা ও তার সাথে কিছু শুকনো খাবারও।

আরও পড়ুনঃ গরিব মানুষের প্রতিদিনের খাবার ব্যবস্থা করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

তারা প্রতিদিন কলকাতার মানুষের জন্য বিভিন্নভাবে মানুষের কাছে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন।

আগামী রবিবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষনে কি বলবেন নরেন্দ্র মোদী?

lockdown

দেশের ও প্রতিটি মানুষের অবস্থা যে দিন দিন খারাপ হয়ে আসছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই কারো। পরিস্থিতি এখনও পর্যন্ত আয়ত্তের মধ্যেই রয়েছে বলে জানা যায় স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য থেকে। তবে যে গতিতে করোনা ভাইরাস ভারতের মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে তাতে পরিস্থিতি এক বার হাতের বাইরে গেলে আর আটকানো যাবেনা।

ভারতে এখনও পর্যন্ত কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত হয়েছে ৬,৭৬১ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০৬ জন। পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্ত ১০৬ ও মৃতের সংখ্যা ৫।

দেশের এই অবস্থাতে লকডাউন তুলে নিলে করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারে প্রতিটি ঘরে ঘরে। এই ভয়ের কথাই বার বার বলে চলেছে ভারতের স্বাস্থ্য বিভাগ। এখনও পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের হার যা দেখা যাচ্ছে তাতে লকডাউন বাড়িয়ে নিয়ে যাওয়াটাই শ্রেয়, সেই কথা জানিয়েছে বিশ্বে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সংখ্যা।

সেই সূত্র ধরে বেশিরভাগ মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য লকডাউন বৃদ্ধির দিকে। তবে সবার শেষে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রতিটি মুখ্যমন্ত্রীর সাথে ভিডিও কনফারেন্সে বসতে চান। সেই দিন ঠিক করা হয়েছে এই শনিবার। আর তার পরেই জানা যাবে দেশে লকডাউনের সময়সীমা বৃদ্ধি হচ্ছে কি না। প্রতিবারের মতো প্রধানমন্ত্রী রবিবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষনে জানাবেন কি হতে চলেছে আগামী দিনের ভারত।

ইতালিতে থামছেনা মৃত্যু মিছিল করোনায় বিপর্যস্ত গোটা দেশ

coronavirus

ইতালিতে করোনা ভাইরাসের প্রভাবটা যে একটু বেশিই দেখা যাচ্ছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। প্রথম দিন থেকেই ফুটে উঠেছে এক ভয়াবহ দৃশ্য। এই ভয়ানক পরিস্থিতিতে ইতালির মানুষের মৃত্যু মিছিল দেখা যাচ্ছে সেই প্রথম দিন থেকেই। ৩১ জানুয়ারি প্রথম ২ জন চিনা মানুষের দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছিল। তারা ছিলেন চিনের উহান প্রদেশের বাসিন্দা। তার পর থেকে একে একে ইতালিবাসি এই মৃত্যু কূপে পড়তে শুরু করে।

আরও পড়ুনঃ করোনা সংক্রমণ বাড়ছে বাংলাদেশেও

দেখতে দেখতে এই কোভিড-১৯ একে বারে হাতের বাইরে চলে যায়। ইতালির চিকিৎসা ব্যবস্থা বহু দেশের থেকে অনেক গুনে ভালো। কিন্তু এই রোগ হাতের বাইরে চলে যায়। এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১৮,২৭৯। সময়ের সাথে এই সংখ্যা আরও বাড়তে থাকবে।

এবার ফুটপাতে পড়ে থাকা মানুষের মুখে খাদ্য তুলে দিল কলকাতা পুলিশ

kolkata police

দেশে করোনার জেরে ২৪ মার্চ থেকে চলছে লকডাউন। এই লকডাউনের মধ্যে প্রায় সব কিছুই বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে দিন আনা দিন খাওয়া মানুষরা এক খারাপ পরিস্থির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। সবরকম কাজ, অফিস, হোটেল বা বড় রেস্তোরা সব কিছুই বন্ধ থাকার ফলে আয়ের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। আয় না থাকায় সমাজের কিছু শ্রেনীর মানুষ বিপাকে পড়েছে।

তাই দরিদ্র মানুষের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য এগিয়ে এল কলকাতা পুলিষের দল। তারা একটি ভ্যানের মাধ্যমে কলকাতার বিভিন্ন স্থানে পৌঁছে গিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ালেন। ভ্যানের সাহাজ্যে খাবার পৌঁছে দিচ্ছে কলকাতার ফুটপাতে পড়ে থাকা মানুষের কাছে। এই অভিযান বহু দুঃস্থ মানুষের কথা ভেবেই শুরু করেছে কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ। এই অভিনব প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বহু মানুষ উপকৃত হচ্ছে।

চেনা রূপে সানি লিওনি, ভক্তদের উচ্ছাস তুঙ্গে

sunny leone

বর্তমান বলিউডের অভিনেত্রী সালি লিওনি যুব সমাজের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় মানুষ। তিনি বেশ কিছু বছর ধরে বলিউডে কাজ করছেন। বলিউডে কাজ করাটা শুরু হয়ে ছিল একটি রিয়ালিটি সো থেকে। যার নাম বিগ বস। সেই খানে প্রথমবার সানিকে দেখা যায়। তারপর একের পর এক কাজ করতে করতে সানি লিওনি বলিউডে নিজের জায়গা করে নিয়েছে।

সানি লিওনি এখন তিন সন্তানের মা। তাদেরকে নিয়ে মাঝে মাঝে ছবি আপলোড করেন সোশাল মিডিয়ায়। কিন্তু সম্প্রতি তিনি কিছু ছবি ভাগ করেন তাঁর ভক্তদের মাঝে যা দেখে ভক্তদের উচ্ছাস তুঙ্গে। সেই ছবি গুলি দেখে নিন এখনই।

তিনি করোনা ভাইরাসের করনে ডাকা লকডাউনের মাঝেই এই ছবি ছেড়ে মানুষের মধ্যে উষ্ণতা ছড়ালেন।

মাঝে মাঝে তাকে বিভিন্ন রুপে দেখা যায়। সোশাল মিডিয়াতে তিনি বেশ সজাগ থাকেন। ভক্তদের উদ্দেশ্যে ছবি বা ভিডিও ছাড়তে তিনি ভোলেননা কখনো।

আপাতত কোনো সিনেমার কথা জানাযাচ্ছে না যেখানে তিনি কাজ করছেন।

আরও পড়ুনঃ বাঙালি সাজে, বাংলা গানে জ্যাকলিন, দেখুন ভিডিও

এই দেশগুলিতে করোনা থাবা বসাতে পারেনি দেখে নিন সেই তালিকা

countries

করোনা প্রায় বিশ্বের প্রতিটি জায়গাতে পৌঁছে গেছে। আর সেই কারনে কোনো না কোনো ভাবে পৃথিবীর প্রতিটি মানুষই এর দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে। বর্তমানে ভারতের মতো দেশে যেখানে কিছু দিন আগেই মাত্র কয়েকশো মানুষ আক্রান্ত ছিল সেখানে আজ প্রায় ৪ হাজার মানুষ এই করোনার থাবার মধ্যে এসে গেছে। যার সূত্রপাত চিনের এক বাজার থেকে হয়েছে বলে ধরা হয়ে থাকে তা আজ বিশ্বের প্রতিটি মানুষের জন্য এক অভিশাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

কিন্তু পৃথিবীতে কিছু দেশ এমনও আছে যেখানে করোনা এখনও পৌছাতে পারেনি। সেই দেশের মানুষ এখনও কিছুটা হলেও চিন্তামুক্ত ভাবে জীবনযাপন করছে। সেই দেশগুলির নাম হল –

  • লেসোথো
  • কোমোরোস
  • সাও টোম অ্যাণ্ড প্রিসিপ
  • মালই
  • সাউথ সুদান
  • টার্কমেনিস্তান
  • নর্থ কোরিয়া
  • টাজিকিস্তান
  • ইমেন
  • সোলোমন আইল্যাণ্ড
  • সামোয়া
  • পালাও
  • টুভালু
  • নাউরু
  • কিরিবাতি
  • টোঙ্গা
  • ভানুয়াতু
  • মারসাল আইল্যাণ্ডস
  • ফেডেরেটেড স্টেট অব মাক্রোনেসিয়া

এই দেশ বা জায়গা গুলিতে এখনও করোনা আসতে পারেনি। তবে বলা যায় নে যে কবে করোনা আবার এই দেশ গুলিতেও চলে যেতে পারে।

টানাপড়েন, বিদেশি তবলিগিদের নিয়ে

nizamuddin jamaat Foreigners

নিজামুদ্দিন কান্ডে তো কপালে ভাঁজ ফেলেছেই করোনা সংক্রমণ। এবার বিভিন্ন দেশ থেকে ভারতে আসা তবলিগি জামাত সদস্যদের নিয়ে টানাপড়েন শুরু হয়ে গেল।

এক দিকে মালয়েশিয়া, বাংলাদেশ, ইন্দোনেশিয়া, তাইল্যান্ডের মতো দেশগুলি সাউথ ব্লকের সঙ্গে কথা বলছে, তাদের নাগরিক তবলিগি সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য। করোনা ভাইরাস যাদের সংক্রমণ হয়নি অথচ কোয়ারেন্টিন-এ রাখা হয়েছে, কিভাবে তাদের দেশে ফেরানো যায় তা জানতে চাইছে। ভারতের তরফ থেকে জানানো হয়েছে রাষ্ট্রদূতদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দেশগুলিকে, কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে দেখা করতে দেওয়ার প্রশ্ন নেই কারোর সাথে। এখন অভুতপুর্ব পরিস্থিতি চলছে তাই জেনেভা কনভেনশন-এর সনদ অনুযায়ী ‘কনসুলার অ্যাক্সেস’ এর দাবি এখানে করা যায় না। কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ হলে, হয় চার্টার্ড বিমানে তাঁদের ফেরত পাঠানো হবে, বা অপেক্ষা করা হবে উড়ান চালুর জন্য। যারা এরমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন, তাঁদের অপেক্ষা করতে হবে আরোগ্যের জন্য।

পাশাপাশি পর্যটক ভিসা নিয়ে এসে ধর্ম সম্মেলনে যোগ দিয়ে শর্তভঙ্গ করার জন্য, এই বিদেশি নাগরিকদের বিরুদ্ধে ভারতের ভিসা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থাও করা হবে। এই বিষয়টি গতকালই স্পষ্ট করে দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। বিভিন্ন দেশ থেকে আসা ভারতে মোট ৯৬০ জন তবলিগি সদস্যের পর্যটন ভিসা বাতিল করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রের বক্তব্য, তবলিগি সদস্যরা এসেছিলেন ৩৯ টি দেশ থেকে, যার মধ্যে বাংলাদেশের ১১০ জন রয়েছে, ৩৭৯ জন ইন্দোনেশিয়ার এবং তাইল্যান্ডের ৬৫ জন ছিলেন। সরকারের বক্তব্য, তাঁরা ৫০০ ডলার করে আর্থিক জরিমান দেওয়ার পরেই তবে অনুমতি পাবেন ফেরার। ভারতে আসাও নিষিদ্ধ তাদের আগামী দু বছর।সাহারনপুর ও কানপুরে নিজামুদ্দিনের সমাবেশ ফেরত ডেরা বাঁধা ৬৫ জন বিদেশির বিরুদ্ধে মামলা করেছে উত্তরপ্রদেশের পুলিশও।

বাচ্চার নাম রেখেছে “করোনা” এবং “লকডাউন”, ভাবা যায়!

baby name corona and lockdown

করোনা এক ভয়াবহ রূপ ধারন করেছে সমগ্র মানব জাতির জন্য। ৫০ হাজারের বেশি মানুষ মারা গিয়েছে এই জীবানুর কারনে। আর এই মৃত্যু লীলা যে কত চলবে তার উত্তর এখন বিজ্ঞানীদের কাছেও নেই।

তবে এরই মাঝে উত্তর প্রদেশে এক কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। যার নাম রাখা হয়েছে “করোনা”। উত্তর প্রদেশেই আর এর পুত্র সন্তান জন্ম গ্রহন করে যার নাম রাখা হয়েছে “লকডাউন”। এখানেই শেষ নয়, ছত্রিশগড়ে দুই যমজ সন্তানের জন্য হয় যাদের নাম রাখা হয়েছে “করোনা” ও “কোভিড”।

যখন যমজ সন্তানের পিতা-মাতার কাছে জানতে চাওয়া হয় যে এই নাম রাখার পিছনে কারণ কী? তারা বলেন, এই নাম দিয়ে মানুষ এখনকার ভায়াবহ পরিস্থিতির কথা মনে রখবে। সাথে করোনা ভাইরাসের উপর মানুষের জয়ের ইতিহাস বহন করবে এই নাম । তাই এই ধরনের নাম রেখেছেন তারা।

লকডাউন নাম টি এসেছে প্রধানমন্ত্রীর ডাকা ২১ দিনের লকডাউন থেকে। এই নাম নাকি বার বার মনে করিয়ে দেবে যে কি কঠিন সময়ে সেই সন্তানের জন্ম হয়ে ছিল এই ভারতের বুকে।

যাইহোক, নামের যাই মহিমা হোক না কেন এই নাম যে যুগ যুগ ধরে মানুষের মনে থেকে যাবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। তবে এই নামে পরবর্তী কালে যে হাস্য রসিকতার পাত্র হতে পারে না সেই কথাও বা কে বলতে পারে।