ইটালিতে মৃত্যু অব্যাহত ছাড়ালো ২০ হাজার

the death toll has risen to 20,000

ইতালিতে একপ্রকার মৃত্যুলীলা শুরু হয়েছিল। করোনা ভাইরাস যে এতটা ভয়ংকর আকার ধারণ করবে তা বুঝতে পারেনি ইটালিবাসী।

সময়ের সাথে সাথে মৃতের সংখ্যাও বেড়ে চলেছে প্রতিনিয়ত। করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১.৫ লক্ষ ছাড়িয়েছে। বেড়েছে মৃতের সংখ্যাও। করোনার কাছে মাথা নত করে প্রাণ হারিয়েছে ২০ হাজার ইতালিবাসী। আর এই মৃত্যুলীলা অব্যাহত।

এই করোনা মহামারীকে ঠেকানোর জন্য ডাকা হয়েছে লকডাউন তবুও কাবু করতে পারছেনা মানুষ। ভারতেও বেড়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। সব থেকে প্রভাবিত হয়েছে আমেরিকা, সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লক্ষ ছুঁই ছুঁই। স্পেনের অবস্থারও যে কোনো উন্নতি হয়নি তা মৃতের সংখ্যাটাই বলে দিচ্ছে।

আমেরিকায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা ৬ লক্ষের দরজায়

coronavirus becoming 6 million people infected

পৃথিবীর সবথেকে বেশি করোনা আক্রান্তের দেখা আমেরিকায় পাওয়া যাবে। সেখানে যে পরিস্থিতি হাতের নাগালের বাইরে চলে গেছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। আমেরিকার মতো দেশে যদি ৫ লক্ষ ৪০ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয় তবে ভারতে সেই সংখ্যাটা যে চার গুন বেশি হতে পারতো।

একটি সমিক্ষা থেকে দেখা গেছে আমেরিকাতে ১ বর্গ কিলো মিটার ৩৩ জন মানুষ বসবাস করে। আর কলকাতাতে ১ বর্গ কিমিতে প্রায় ২৪ হাজার মানুষ বসবাস করে।

ভারত সামাজিক স্তরে করোনা ভাইরাস ছড়াতে থাকলে কিছু দিনের মধ্যেই আমেরিকাকে ভারত ছাড়িয়ে যাবে। আজ দিনের শেষে আমেরিকাতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫.৪৪ লক্ষ আর ভারতে সেই সংখ্যা হল ১০ হাজার।

বান্দ্রা স্টেশনে লকডাউন অমান্য করায় পুলিশ লাঠি চার্চ করলো কর্মীদের উপর

Police baton-charge migrant workers at Mumbai’s Bandra station

মঙ্গলবার মুম্বাইয়ের বান্দ্রা স্টেশনের বাইরে কয়েক হাজার অভিবাসী কর্মী বর্ধিত দেশব্যাপী লকডাউনের প্রতিবাদে জড়ো হয়েছে। তারা নিজ শহরে ফিরে যাওয়ার জন্য পরিবহনের ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছিল।

আজ সকাল ১০ টায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২৫ শে মার্চ থেকে শুরু হওয়া দেশব্যাপী লকডাউন বাড়ানোর ঘোষণা করেছিলেন। তবে, মুখ্যমন্ত্রীদের বারবার অনুরোধ সত্ত্বেও তিনি অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য অর্থনৈতিক পুনরুজ্জীবন পরিকল্পনা বা প্যাকেজ ঘোষণা করেননি। জরুরি ব্যবস্থার জন্য যা তাদের সঙ্কটের আবহাওয়াতে সহায়তা করতে পারে।

এই লকডাউনের ফলে বেশ কয়েকটি রাজ্যে শ্রমিকরা আটকা পড়েছে, অর্থ, সামান্য খাবার এবং এমনকি তারা যে জায়গাগুলিতে বাস করছে সেগুলি ছেড়ে দেওয়ার খুব কম বিকল্প রয়েছে। এমনই অবস্থায় দেশে লকডাউন বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রায় ১ হাজারেরও বেশি শ্রমিন বান্দ্রা স্টেশনের কাছে অবস্থিত বাস স্টেশনে এসে প্রতিবাদ জানায়।

এই ঘটনা যে ভয়ানক ফল এনে দিতে পারে, করোনা ভাইরাস সামাজিক স্তরে ছড়িয়ে পড়তে পারে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। মহারাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৩৩৭ জন। এই পরিস্থিতে কর্মীদের নিজ বাড়ি ফিরে যেতে দেওয়া যে একেবারে ঠিক কাজ হবে না বলে মনে করা হয়েছে। তাই সেই কথা ভেবে এই কর্মীদের এখান থেকে সরানো হয়েছে।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দশ হাজার ছাড়ালো

করোনা যে ভারতের মানুষের জীবন যাপনকে বদলে দিয়ে যাবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। কিছু দিনের ব্যবধানে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছেড়ে দাঁড়ালো ১০৮১৫ জন। সংখ্যাটা ১০০ কোটির দেশে শুনতে একেবারে নগণ্য লাগলেও ছড়াতে বেশি সময় লাগেনা।

যেখানে বিশ্বের শক্তিশালী দেশগুলি একেবারে ভেঙে পড়েছে, সেখানে ভারতের মতো দেশে হাহাকার সৃষ্টি করতে পারে। সেই পরিস্থিতিতে এখনও যাইনি ভারত। আর তাই বার বার বিভিন্ন জায়গার অবহেলার চিত্র ফুটে উঠেছে।

অবহেলার জেরে আক্রান্তের সংখ্যা বহুগুনে বেড়ে যেতে পারে রাতারাতি। তবে এখনই বন্ধ করা হচ্ছে না লকডাউন। এখনও কিছু দিন গৃহ বন্দী হয়ে থাকতে হবে ভারতের জনগণকে। সেই বার্তাই পাওয়া গেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাষণে।

এখনও পর্যন্ত দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫৩ জন ও ১১৯০ জনকে সুস্থ করেতলা সম্ভব হয়েছে।

পাবজি খেলোয়াড় দের জন্য সুখবর, আসতে চলেছে নতুন ‘মোড’

new mode is coming.

পাবজি নিঃসন্দেহে একটি জনপ্রিয় ভিডিও গেম। লকডাউনের সময় বেসিরভাগ ছাত্র-ছাত্রীদের সব সময়ের সঙ্গী হয়ে উঠেছে এই যুদ্ধ জয় ও চিকেন ডিনার পাওয়ার খেলা পাবজি।

বিগত বছরে এই খেলার মধ্যে বেশ কিছু নতুন জিনিস দেখতে পাওয়া গিয়েছিল। প্রায় সময়েই বিভিন্ন ধরনের আপডেট হতে থাকে এই খেলার মধ্যে।

সম্প্রতি ‘পাবজি মোবাইল’-এর টুইটার পেজে একটি নতুন ছবি ছেড়ে জানালে এই গেমে একটি নতুন ‘মোড’ আসতে চলেছে। এই নতুন ‘মোড’ সকল ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছে যাবে। তবে এই আপডেট কিন্তু শুধু মাত্র মোবাইল ব্যবহারকারীর কাছেই আসতে চলেছে। কম্পিউটারে এই খেলায় মজা নেওয়াদের কাছে এই ধরনের কোনো ‘মোড’ আসবে কি তা জানা যায়নি।

মহামারীর মতো বৃদ্ধি পেয়েছে পর্নোগ্রাফি, ভারতে বৃদ্ধির হার ৯৫ শতাংশ

india watch porn

দেশ তথা সমগ্র বিশ্বের মানুষ এখন ঘরবন্দি। আর সেই সুযোগে বৃদ্ধি পেয়েছে পর্নোগ্রাফি দেখাও। সেই রকমভাবেই তথ্য উঠে এল সামনে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১ মাসের বেশি লকডাউন পালন করা হচ্ছে। তারই ফাঁকে বেড়েছে পর্ন দেখার মানুষের। এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এল বিশ্বের সব থেকে বড় পর্ন সাইট পর্নহাবের কাছ থেকে।

পর্নহাব তার রিপর্ট থেকে জানিয়েছে প্রতিটি দেশে মানুষ গৃহবন্দী থাকায় তারা সুযোগ পেলেই চলে আসছে তাদের সাইটে। ভারতে অনেক ওয়েবসাইট ব্লক করা আছে। তবে মিরর ডোমেন কে কাজে লাগিয়ে অনায়াসে ব্যবহার করা যায় ব্লক করা সাইটগুলি।

আরও পড়ুনঃ উষ্ণতায় ভরপুর ভিডিও, নেটদুনিয়ায় ঝড় তুললেন রিয়া সেন

শুধুমাত্র যে ভারতে বৃদ্ধি হয়েছে তা নয়। ভারত ছাড়াও দেশের তালিকায় রয়েছে জার্মানি, ফ্রান্স, ইতালি, রাশিয়া, সাউথ কোরিয়া, স্পেন, সুইজারল্যান্ড, এবং আমেরিকা।

পর্নহাবের তথ্য অনুযায়ী ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি হয়েছে ফ্রান্সে, ২২ থেকে ২৫ শতাংশ জার্মানিতে, ৫০ শতাংশ রাশিয়াতে, ৬০ শতাংশ স্পেনে, ২৫ শতাংশ সুইজারল্যান্ডে।

সাউথ কোরিয়াতে লকডাউনে সব কিছু সম্পুর্নভাবে বন্ধ ছিল না। তাই সেরকম ভাবে বৃদ্ধি লক্ষ করা যায়নি।

তবে ভারতে বৃদ্ধি ভালোভাবেই দেখা গেছে। প্রায় ৯৫ শতাংশ হার বৃদ্ধি পেয়েছে লকডাউন ডাকার পর থেকে। ভারতে লকডাউন আরম্ভ হয় ২৪ মার্চ রাত থেকে। আর তার পরেই বাঁধন ছাড়া ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে পর্ন দেখার।

আরও পড়ুনঃ বাংলার বিভিন্ন জায়গায় মানা হচ্ছেনা লকডাউন, চিঠি দিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

ড্রোনের সাহায্যে পাঠানো হয়েছে পান মশলা, ভিডিও ভাইরাল

drone-delivers-pan-masala-video

দেশে লকডাউন থাকায় মানুষ মানুষের কাছাকাছি যেতে পারছেনা। কথা বলতে পারছেনা একে অপরের সাথে। কোনো জিনিস কিনতে গেলেও দূর থেকে কথা বলতে হচ্ছে। এরই মাঝে একটা ভিডিও সোশাল মিডিয়েয় ভাইরাল হয়ে গেল।

ভিডিওতে দেখা যায় এই ড্রোনের সাহায্যে একটি জিনিস পাঠানো হয়েছে। একটি মানুষ অপেক্ষা করে আছে সেই জিনিসটাকে নেওয়ার জন্য। কিন্তু এল তো এল পান মশলা তাও আবার ড্রোনে করে। দেখুন সেই ভিডিও।

দেশের কিছু জায়গাতে, দেশের বাইরে বিভিন্ন দেশে ড্রোনে করে জিনিসপত্র ডেলিভার হয়ে থাকে। আমাদের দেশেও সেই রকম করার আলোচনা চলছিল বিভিন্ন শিল্পমহলে। তবে তার মাঝেই এসে কড়েছে করোনা ভাইরাস। এই মহামারি কাটিয়ে উঠলে ড্রোন ব্যবস্থার চালু করা হতে পারে। আবার এটাও হতে পারে এই রোগের ফলে দেশে কুরিয়ার কম্পানিগুলি মানুষের বদলে শক্তিশালি ড্রোনের ব্যবহার করে ডেলিভারি পরিসেবা চালু রাখতে পারে। তবে সবই উত্তর লুকিয়ে আছে ভবিস্যতের কোলে।

রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত ১১৬ চিহ্নিত করোনার হটস্পট

coronavirus cases in west bengal

দেখতে দেখতে সংখ্যাটা যে বেড়ে দাঁড়াল ১১৬। রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাটাও। গোটা রাজ্যে মৃতের সংখ্যা ৫। এখনও পর্যন্ত সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়া মানুষের সংখ্যা হল ১৬। আর এই সংখ্যাটাকে কোনো ভাবেই থামানো যাচ্ছে না। করোনা সংক্রমনের হাত থেকে বাঁচার একটাই পথ বাড়ির বাইরে না যাওয়া। তাই উপস্থিত অবস্থার কথা ভেবে লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর কথাবার্তা চলছে কেন্দ্রীয় দফতরে। সেই আলোচনার ফলাফলের উপর নির্ভর করছে আগামী দিনের ভারত।

এই অবস্থাতে বেশ কিছু জায়গার নাম উঠে আসছে যেগুলি করোনা ভাইরাসের হটস্পট বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই স্থানগুলিতে বেশ কড়া নজরদারী চালানো হচ্ছে। সেই স্থানগুলি হল উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়ার শিবপুর, বেলঘড়িয়া, বড়বাজার, ভবানিপুর ইত্যাদি। এই স্থানগুলিতে যাতে আর না ছড়িয়ে পড়ে সেই কথা ভেবেই কড়া ভাবে লকডাউন পালনের দিকে জোর দিয়েছে রাজ্য সরকার।

এক দিনেই মৃত্যু ২,০০০ রেকর্ড ছাড়ালো আমেরিকায়

usa-coronavirus-cases

আমেরিকাতে করোনা ভাইরাসের আক্রমন যে হারে বেড়ে চলেছে তার একটি ফলাফল দেখা গেল শুক্রবার। রিপোর্ট আসতে জানা গেল এক দিনেই ২,০০০ মানুষের মৃত্যু হল করোনার কারনে।

আমেরিকা জুড়ে মোট ১৮ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যুর খবর পাওয়া যাচ্ছে। যা ইতালিকে কিছু দিনের ব্যবধানে ছাড়িয়ে যাবে। শুধু তাই নয়, এই কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়াল প্রায় ৫ লক্ষ্য। যা সমগ্র বিশ্বে প্রায় ১৭ লক্ষ্য।

করোনা ভাইরাসের যে রূপরেখা দেখা যাচ্ছে তাতে এই রোগ যে সহজে মানুষের জীবন থেকে চলে যাবে তা বলাটা খুবই কঠিন। এই রোগের একটাই ওষুধ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। যতদিন না মানুষের কাছে এই রোগের সাথে লড়াই করার হাতিয়ার আসছে, ততদিন পর্যন্ত মানুষকে নিজ ঘরে সময় কাটাতে হবে।

দুষ্টু ছবি পোস্ট করেলন সারা আলি খান

Sara Ali Khan posted a photo on instagram

মুম্বইঃ লকডাউনে ঘরে বন্দি এখন বলিউড সেলেবরা। সরকারের সিদ্ধান্ত মেনেই সকলে স্বেচ্ছায় বন্দি ঘরে। নিজেকে ঘরেই আটকে রেখেছেন সারা আলি খান। বলিউডের তরুণতুর্কিদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় সারা আলি খান। এছাড়াও সইফ ও অমৃতা সিংয়ের মেয়ে হওয়ার জন্য একটা সেলেব পরিচিতি ছিল আগে থেকেই তাঁর।

সুন্দরি সারার ফ্যান গোটা সিনেমা জগৎ। সারার চেহারা আগে ছিপছিপে রোগা ছিল না, তিনি আগে মোটা সোটা মিষ্টি দেখতে ছিলেন। তবে ছোট থেকে তিনি সাজতে খুব ভালোবাসতেন। তিনি তার ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে তাঁর আগের ও এখনকার দুটি ছবি পোস্ট করলেন তিনি। পোস্ট করে তিনি লেখেন, “কিছু জিনিস কখনও বদলায় না। ছোট্ট সারার ছবি। সারার ছবি তোলার পোস, ভঙ্গি, সাজগোজ সবই এখনও একই রয়েছে। আমি ছোট্ট থেকেই দুষ্টু।” এই পোস্ট টি সারা শেয়ার করেন। তবে, ফ্যানেরা তার মিষ্টি ছবি দেখে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন।