চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালো আমেরিকা, উঠল একই দাবি

লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনার আবহতে টিক টক সহ ৫৯টি অ্যাপ সোমবারই নিষিদ্ধ করলো ভারত সরকার। আর এর পর থেকেই গুগল প্লে স্টোর বা অ্যাপেল অ্যাপ স্টোর কোথাওই এই চিনা অ্যাপ গুলির দেখা মিলছেনা। চিনের এইরকম বাড়াবাড়ি রুখতে ভারতের এই সিদ্ধান্তকে আমেরিকা স্বাগত জানালো।

বুধবার এই বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও, তিনি একটি বিবৃতিতে বলেন যে, “চিনা কমিউনিস্ট পার্টির নজরদারি রুখতে এটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হিসাবে কাজ করতে পারে”। তিনি আরও বলেন, “অ্যাপের ক্ষেত্রে নেওয়া এই সিদ্ধান্ত ভারতের সার্বভৌমত্বকে আরও শক্তিশালী করে তুলবে এবং অখণ্ডতা ও জাতীয় সুরক্ষাকে নিশ্চিত করবে।

আরও পড়ুনঃ প্রাতঃ ভ্রমনে আক্রান্ত রাজ্য বিজেপি প্রধান দিলীপ ঘোষ, ভাঙা হল একাধিক গাড়ি

মার্কিন কংগ্রেসের অনেক সদস্যই টিক টক নিষিদ্ধ করার কথা বলেছেন। তাদের দাবি, টিক টকের মত শর্ট ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ দেশের নিরাপত্তার পক্ষে বিপজ্জনক। রিপাবলিকান সেনেটর জন করনিন বলেছেন, লাদাখে সংঘর্ষের পরে ভারত টিক টক সহ বেশ কিছু অ্যাপ নিসিদ্ধ করেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেরও এই একই ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

মার্কিন সরকারের আধিকারিকরা তাদের ফোনে যেন টিক টক না রাখেন। সেই নির্দেশ দেওয়া সংক্রান্ত দু’টি বিল মার্কিন কংগ্রেসের বিবেচনাধীন ইতিমধ্যেই। চিনা অ্যাপ ভারত নিষিদ্ধ করার পর সেই বিল এবার পাশ করার দাবি জোরালো হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ বৈঠকে কাটল না জট, ১লা জুলাই চালু হচ্ছে না কলকাতা মেট্রো

ভারত ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেই থেমে নেই, এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে চিনের ওয়েবো অ্যাপ থেকে অ্যাকাউন্ট সরিয়ে নিলেন। আর এইরকম একটি পদক্ষেপ থেকে তিনি বুঝিয়ে দিলেন যে সর্বোতভাবে চিনকে এবার প্রত্যাখ্যানের দিকেই ভারত এগোচ্ছে।

Leave a Comment