২৫০ জন মুসলমান হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত হওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে হরিয়ানায়

শুক্রবার, হরিয়ানার হিশার জেলার বিধমিরা গ্রামে ৪০ টি মুসলিম পরিবারের 250 জন মুসলমান হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। গ্রামের সেই সব মুসলিম পরিবারের লোকেরা হিন্দুদের মতো জীবনযাপন করত, তবে কেবল মৃতের শেষকৃত্যে মৃতদেহকে দাফনের ইসলামিক রীতি অনুসরণ করতো। এই সব পরিবারগুলি স্বাধীনতার আগে দানোদা কালান গ্রামে বাস করত।

মাজিদ নামে এক গ্রামবাসী এই ধর্মান্তরের ভিত্তিতে বলেছিলেন, “আমরা যখন আমাদের মৃতদের কবর দিই, তখনই গ্রামবাসীরা আমাদের দিকে অন্যভাবে তাকিয়ে থাকে। তাই, বাচ্চাদের ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিই যে আমরা ধর্মান্তরিত হব।” তিনি স্বীকার করেছেন যে লোকেরা এখন শিক্ষার কারণে তাদের অতীত সম্পর্কে জানে।

আরও পড়ুনঃ রিয়াজ নাইকুর মৃত্যু কেন্দ্র করে শোক সভা, প্রকাশ্যে ভিডিও

স্থানীয় বাসিন্দা সাতবীর যিনি সম্প্রতি হিন্দু রীতিনীতি অনুসারে তাঁর ৮০ বছরের বৃদ্ধা মা ফুলি দেবীকে দাফন করতে হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত হয়েছিলেন, তিনি স্বীকার করেছেন যে তিনি ডুম জাতির অন্তর্ভুক্ত ছিলেন, যার পরিবার আওরঙ্গজেবের শাসনামলে ইসলাম গ্রহণ করেছিল।

মুসলিম কল্যাণ সংস্থার হরিয়ানার রাজ্য সভাপতি হারফুল খান ভাট্টি দাবি করেছেন যে, ইসলাম থেকে হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত হওয়া গণ ধর্মীয় রূপান্তরই ছিল ‘বর্ণ ভিত্তিক সংরক্ষণ পাওয়ার পেছনে লোভ’। ভাট্টির মতে, ১৯৫১ সালের বিজ্ঞপ্তির কারণে মুসলিম ও খ্রিস্টানরা ডুম জাতের কোটা পেতে পারেন না। আর সেই কারনেই এই পরিবের্তন, বলে তিনি মনে করছেন।

আরও পড়ুনঃ তবলিগি জামাতের প্রধানের ওপর চলছে তদন্ত, নজরে ৩০ টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট

Leave a Comment